খুলনায় বাস ভাড়া বৃদ্ধিকে ‘মরার ওপর খাড়ার ঘা’ বলছেন যাত্রীরা

খুলনা ব্যুরো ॥ করোনার ছোবলে অর্থ সংকটে থাকার পরও বাস ভাড়া এক লাফে ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন খুলনার যাত্রীরা। তারা এই সিদ্ধান্তকে ‘মরার ওপর খাড়ার ঘা’ বলে মন্তব্য করেছেন।
এদিকে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে টানা ৬৬ দিন বন্ধ থাকার সোমবার (১ জুন) থেকে খুলনায় বাস চলাচল শুরু হয়েছে। তবে, কম যাত্রী নিয়ে বাস ছাড়লেও অধিকাংশ কাউন্টার ও অভ্যন্তরীণ রূটের পরিবহনগুলোতে স্বাস্থ্য বিধির প্রয়োগ দেখা যায়নি।
সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনালে আব্দুল্লাহ নামের এক যাত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, করোনার সময় এমনিতেই সাধারণ মানুষের আর্থিক অবস্থা খারাপ? তার ওপর অনেকের চাকরি নেই। চাকরি থাকলেও বেতন নেই। এ অবস্থায় বাড়তি ভাড়া ‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘায়ে’ পরিণত হয়েছে।
এছাড়া ৬০ ভাগ বর্ধিত ভাড়া গুনতে হওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে অপর যাত্রী লাইলা সুলতানা বলেন, এক ধাক্কায় বাসভাড়া এত বৃদ্ধি কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। বিষয়টি দ্রুত বিবেচনা করে পদক্ষেপ নেয়া উচিত।
বাস কাউন্টারের কর্মকর্তারা জানান, সরকারের নির্দেশনা মেনে তারা সব ধরণের বাস, মিনিবাসে পাশাপাশি দুইটি আসনের একটি খালি রেখে যাত্রী পরিবহন করছেন? মোট আসন সংখ্যার অর্ধেকের বেশি যাত্রী বহন করছেন না? এছাড়া ষাট ভাগ পর্যন্ত ভাড়া বৃদ্ধির নিয়মেই তারা ভাড়া নিচ্ছেন।
মহানগরী রয়্যাল মোড়ের টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেসের কাউন্টারের ম্যানেজার আব্দুল করিম বলেন, সকাল থেকেই ঢাকার উদ্দেশ্যে বাস ছেড়ে যাচ্ছে। সারা দিনই বাস রয়েছে।
এছাড়া একই মোড়ের দিদার পরিবহনের টিকিট বিক্রেতা মো. জাহাঙ্গীর বলেন, খুলনা থেকে চট্টগ্রামগামী দিদার পরিবহনের বাস চলাচল শুরু হয়েছে। টিকিটের মূল্য ৬০ শতাংশ বর্ধিত করা হয়েছে।
এদিকে, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল সোনাডাঙ্গা থেকে স্বল্প পরিসরে কিছু বাস ছেড়ে গেছে। তবে অধিকাংশ বাস কাউন্টারে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধকমূলক তেমন কোন ব্যবস্থা ছাড়াই কাউন্টার খুলে টিকিট বিক্রি করতে দেখা গেছে। বাস যাত্রার আগে বাসে জীবাণুনাশক ওষুধ স্প্রে করার কথা থাকলেও অনেক পরিবহন তা মানছে না। বিশেষ করে অভ্যন্তরীণ রুটের বাসগুলোতে এ নিয়ম মানা হচ্ছে না। যাত্রীরাও অনেকে মাস্ক ব্যবহার করছেন না।
খুলনা জেলা বাস মিনিবাস কোচ মালিক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ারা হোসেন সোনা বলেন, স্বাস্থ্য বিধি মেনে ৬০ ভাগ ভাড়া বৃদ্ধি করে দূর পাল্লার সব রুটে বাস চলাচল শুরু হয়েছে।

শেয়ার