‘ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে…’ এলো খুশির ঈদ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ‘ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ…’। আজ ২৩ মে, ২৯ রমজান। আজ শনিবার বাংলাদেশের আকাশে হিজরি শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে কাল রোববার উদযাপিত হবে মুসলিম উম্মাহ’র সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। আর আজ চাঁদ দেখা না গেলে ঈদ উদযাপিত হবে সোমবার। তবে বৈশ্বিক মহামারী কোভিড-১৯ এর কারণে এবার আর প্রতিবারের মত বাঁধভাঙ্গা উচ্ছ্বাসে ঈদ উদযাপিত হচ্ছে না। বরং স্বাস্থ্যবিধি ও সুরক্ষার নিয়মনীতি মেনে ঘরে থেকেই ঈদ উদযাপন করতে হবে। করোনা পরিস্থিতির কারণে এমনই নির্দেশনা দিয়েছে সরকার।
ঈদ মানে আনন্দ। ঈদ মানে খুশি। ফিতরের এক অর্থ ভঙ্গ করা। ঈদুল ফিতরের অর্থ রোজার সমাপ্তি ঘটানোর আনন্দ। অর্থাৎ দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনা, তারাবির নামাজ, জাকাত-ফিতরা আদায়ের পর মুসলিম উম্মাহ রোজা ভঙ্গ করে মহান আল্লাহ তায়ালার বিশেষ নিয়ামতের শুকরিয়াস্বরূপ যে আনন্দ-উৎসবে মেতে ওঠেন তাই ঈদুল ফিতর। এই আনন্দ কর্মশেষে সাফল্যের আনন্দ। এই আনন্দ প্রাপ্তির আনন্দ। এই আনন্দ আল্লাহর তাকওয়া অর্জনের সাফল্যের আনন্দ।
এবার করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে আসছে মুসলমানদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর কবে হবে, তা জানা যাবে আজ। সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে ঈদুল ফিতরের তারিখ নির্ধারণ ও শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখার তথ্য পর্যালোচনায় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা হবে।
ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ তাতে সভাপতিত্ব করবেন বলে শুক্রবার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। বাংলাদেশের আকাশে শনিবার শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে রোববার ঈদ হবে, আর চাঁদ দেখা না গেলে ঈদ হবে সোমবার।
বাংলাদেশের আকাশে কোথায় শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে ৯৫৫৯৪৯৩, ৯৫৫৫৯৪৭, ৯৫৫৬৪০৭ ও ৯৫৫৮৩৩৭ নম্বরে টেলিফোন এবং ৯৫৬৩৩৯৭ ও ৯৫৫৫৯৫১ নম্বরে ফ্যাক্স করে জানাতে অনুরোধ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।
এদিকে, করোনাভাইরাস অতিমাত্রায় সংক্রামক বলে সব ধরনের অফিস-আদালত ও গণপরিবহন বন্ধ রাখা হয়েছে গত ২৬ মার্চ থেকে। এই সময় সবাইকে বাসায় থাকার, জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
মসজিদে জামাতে নামাজ পড়ার ওপর দেওয়া কড়াকড়ি সম্প্রতি তুলে নেওয়া হলেও এবার রোজার ঈদের দিন ঈদগাহ বা খোলা জায়গার বদলে বাড়ির কাছে মসজিদে ঈদের নামাজ পড়তে বলেছে সরকার।
সেইসঙ্গে মসজিদে ঈদ জামাত আয়োজনের ক্ষেত্রে সুরক্ষার ব্যবস্থা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বেশ কিছু শর্ত দিয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয় বলেছে, এসব নির্দেশনা না মানলে ‘আইনগত ব্যবস্থা’ নেওয়া হবে।
চাঁদ দেখা কমিটির সভায় সারা দেশে চাঁদ দেখার তথ্য পর্যালোচনা করে ঈদের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠেয় বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ শেখ মো. আব্দুল্লাহ।
এদিকে, ঈদের ছুটি শুরু হয়েছে। প্রথমে কড়াকড়ি আরোপ করা হলেও পরবর্তীতে ব্যক্তিগত গাড়ি ও মাইক্রোবাসে চড়ে অনেকেই গ্রামের বাড়ির পথ ধরেছেন। স্বজনদের সাথে ঈদ করার জন্য নাড়ির টানে গ্রামে ছুটতে শুরু করেছেন লাখ লাখ মানুষ।
ঈদের দিন সকালে সবাই ঈদগাহে সমবেত হন। একই কাতারে দাঁড়িয়ে আদায় করেন দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ। এরপর সবাই একে অপরের সাথে কোলাকুলি করেন, কুশলবিনিময় করেন। একে অপরের বাড়িতে গিয়ে, সাক্ষাৎ করে ঈদ কুশলবিনিময় করেন, আপ্যায়িত হন। এটিই স্বাভাবিক নিয়ম। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে এবার আর এটি হচ্ছে না। ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে নির্ধারিত মসজিদগুলোতে। দূরত্ব বজায় রেখে নামাজ পড়ে কোলাকুলি ছাড়াই ধরতে হবে বাড়ির পথ।
ঈদুল ফিতরে সাদকায়ে ফিতর আদায় করা ওয়াজিব। ঈদের নামাজের আগেই তা আদায় করা উত্তম। এবার মাথাপিছু ফিতরা ধার্য করেছে সর্বনি¤œ ৭০ টাকা।
ঈদ উপলক্ষে সরকারি-বেসরকারি টিভি চ্যানেল ও রেডিওতে প্রচারিত হবে বিশেষ অনুষ্ঠান। টিভি চ্যানেলগুলো ইতোমধ্যে বিশেষ অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে।

শেয়ার