যবিপ্রবির ল্যাবে শনাক্ত হলো যশোর চুয়াডাঙ্গা মাগুরা ও ঝিনাইদহের ১৫ নতুন করোনা রোগী

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় চার জেলার আরও ১৫ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। সোমবার পরীক্ষার পর মঙ্গলবার এ ফলাফল জানানো হয়। চার জেলার ১৫১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে এই ১৫ জনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। আক্রান্তদের মধ্যে যশোর ও চুয়াডাঙ্গার ৫জন করে এবং মাগুরার ৪জন ও ঝিনাইদহের একজন রোগী রয়েছে। এ নিয়ে যবিপ্রবির জিনোম সেন্টারে ১৭ দিনে ১৭২ জন করোনা রোগী শনাক্ত হলো।
যবিপ্রবি জিনোম সেন্টারের সহযোগী পরিচালক ও অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. ইকবাল কবীর জাহিদ জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে চার জেলার ১৫১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৫ জন করোনা পজিটিভ রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে যশোরের ৩২ জনের এবং চুয়াডাঙ্গার ৬২টি নমুনা পরীক্ষা করে ৫ জন করে করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ বাদেও মাগুরার ৩৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ৪ জন এবং ঝিনাইদহে ২১টি নমুনা পরীক্ষা করে একজন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। অর্থাৎ যবিপ্রবির ল্যাবে মোট ১৫১টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৫টিতে পজিটিভ এবং ১৩৬টিতে নেগেটিভ ফলাফল এসেছে।
এ নিয়ে সবমিলিয়ে যবিপ্রবির জিনোম সেন্টারে ১৭ দিনে ১৭২ জন করোনা রোগী শনাক্ত হলো। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ৭৫ জন যশোরের রোগী। এছাড়া ঝিনাইদহে ৩৯ জন, চুয়াডাঙ্গার ২৭ জন, নড়াইলে ১২ জন, কুষ্টিয়ায় চারজন, মাগুরার ১২ জন ও মেহেরপুরে তিনজন রোগী শনাক্ত হয়েছে। যবিপ্রবিতে করোনা শনাক্তে সাত জেলার মানুষের নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে।
এদিকে, যশোর জেলায় আরও চারজন করোনা জয় করেছেন। জেলা সিভিল সার্জন তাদেরকে ছাড়পত্র ও ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে তাদের বাড়ি থেকে লকডাউন তুলে নেন। এই নিয়ে জেলায় ২৯ জন করোনা জয় করলেন।
যশোর সিভিল সার্জন অফিসের ডা. রেহেনেওয়াজ জানান, মঙ্গলবার নতুন করে ৪ জনকে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ফুলের শুভেচ্ছা ও ছাড়পত্র প্রদান করছেন। তারা হচ্ছেন, ঝিকরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত স্বাস্থ্যকর্মী ও যশোর শহরের বাবলাতলা এলাকার বাসিন্দা শারাফাত হোসেন মুন্না, শার্শার হাসানুজ্জামান, শহরের খড়কি এলাকার রুনা পারভীন এবং আরেকজন।

শেয়ার