যশোরে আরও ২০ জনের করোনা জয়

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তরা সুস্থ হয়ে উঠছেন। সুস্থ হওয়া ব্যক্তিদের জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে সিভিল সার্জন নিজে ফুল, ফল এবং ছাড়পত্র হাতে দিয়ে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। গতকাল সোমবার দুপুর তিনটার দিকে জেলায় সর্বশেষ ২০ জনকে ছাড়পত্র দিয়েছেন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এর মধ্যে সাংবাদিক, চিকিৎসক, সেবিকা এবং স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন। এনিয়ে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সর্বমোট ২৫ জন ছাড়পত্র দিয়েছে। তাদের বাড়ি থেকে লকডাউন তুলে নিয়েছেন স্বাস্থ্য বিভাগ।
সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানা যায়, যশোর জেলায় ২০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের নমুনা নির্দিষ্ট সময় পরে দুইবার করে ল্যাবে পরীক্ষা শেষে নেগেটিভ আসায় এবং শরীরে কোন উপসর্গ না দেখা দেওয়ার কারণে আনুষ্ঠানিকভাবে সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন সোমবার করোনাজয়ীর ছাড়পত্র প্রদান করেন।
ছাড়পত্র পাওয়ারা হলেন, যশোর শহরের পোস্টঅফিস পাড়া এলাকার সাংবাদিক সিদ্দিক হোসেন (৬২) ও অপর একজন নূর ই আলম (৫৬)। মণিরামপুর উপজেলা থেকে স্বাস্থ্যকর্মী রবিউল ইসলাম, কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন প্রতিষ্ঠানের ডা. জাহিদুর রহমান, ডা. প্রদীপ চৌধুরী, স্বাস্থ্য সহকারী ওয়াহেদুজ্জামান, স্বাস্থ্যকর্মী সনজিৎ কুমার বিশ^াস, আশিকুর রহমান, ল্যাব টেকনিশিয়ান নাজমুল করিম। সাধারণ মানুষের মধ্যে বকুল (২২), ফিরোজ আলম রিপন (৩৮), আমিরুল ইসলাম (৫৩) এবং মনছুর হোসেন (৪০)।
চৌগাছা উপজেলায় ছাড়পত্র পাওয়ারা হলেন, সিনিয়র স্টাফ নার্স রোকেয়া পারভীন, হাফিজা পারভীন ও শিমুল আক্তার। বাঘারপাড়া উপজেলা থেকে আব্দুল মান্নান (২৫), ঝিকরগাছা উপজেলা থেকে শামছুর রহমান (৬০), শার্শা থেকে জাহাঙ্গীর হোসেন এবং যশোর জেলার বাইরে চুয়াডাঙ্গা জীবন নগর থেকে শারমীন বেগমকে (৬০) ছাড়পত্র দিয়ে বাড়ি থেকে লকডাউন তুলে নেওয়া হয়।
উল্লেখ, গেলো রোববার পালবাড়ি এলাকার গৃহবধূ সুমাইয়া ইসলাম (২৩), শনিবার মেডিকেল কলেজের ইএনটি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. এসএম নাজমুল হক ও তার স্ত্রী ডা. শরিফা খাতুন এবং যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের প্রসূতি ওয়ার্ডের চিকিৎসাধীন জান্নাতি বেগমকে সিভিল সার্জন আনুষ্ঠানিক ছাড়পত্র ও স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এর আগে শহরের স্টেডিয়াম পাড়ায় চৌগাছার গাইনি চিকিৎসককে ছাড়পত্র প্রদান করা হয়। সোমবার ছাড়পত্র দেওয়ার সময় সিভিল সার্জনের সাথে ছিলেন ডা. রেহেনেওয়াজসহ কেশবপুর, মণিরামপুর ও ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা।
সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানান, আক্রান্তরা সুস্থ হয়ে যাওয়ায় বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার গাইড লাইন অনুযায়ী সোমবার আনুষ্ঠানিক ভাবে তাদেরকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার