আগড়ঘাটায় পরিবেশ দূষণ করছে অবৈধ বেকারী কারখানা

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥ পাইকগাছা উপজেলার আগড়ঘাটা আবাসিক এলাকায় অবৈধ উপায়ে গড়ে তোলা হয়েছে বেকারী কারখানা। কারখানার কালো ধোঁয়ায় এলাকার পরিবেশ দূষণ করে তুলছে। ফলে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়েছেন আশপাশে বসবাসকারী সাধারণ মানুষ। শব্দ ও পরিবেশ দুষণে অতিষ্ট এলাকাবাসী বেকারী কারখানাটি দ্রুত বন্ধের দাবি জানিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত আবেদন করেছে।
জানাগেছে, উপজেলার আগড়ঘাটা সংলগ্ন (ভেদামারী) মোড় সংলগ্ন এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে তোলা হয়েছে বেকারী কারখানা। কারখানার আশ-পাশেই রয়েছে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের বসবাস। রয়েছে অত্র এলাকার একমাত্র নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বেগম শামসুন্নাহার নি¤œ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, কওমি মাদ্রাসা ও জামে মসজিদ। তথ্যানুসন্ধানে জানাযায়, কারখানাটির নেই কোন লাইসেন্স, নেই পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি, নেই বিএসটিআইয়ের অনুমোদনসহ সেনেটারী লাইসেন্স। শুধু তাই নয়, ইউনিয়ন পরিষদের ট্রেড লাইসেন্স নেই বলেও জানাগেছে। স্থানীয় মালথ গ্রামের মৃতঃ রহিম জোয়ার্দারের পুত্র আঃ কুদ্দুস জোয়ার্দার তার নিজস্ব জমিতে অবৈধ কারখানা গড়ে তোলেন এবং সেটি সম্প্রতি উপজেলার হরিঢালী ইউনিয়নে মিনাজ গাজীর ছেলে মফিজুল গাজীর নিকট পরিচালনার জন্য ভাড়া প্রদান করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। কারখানায় ব্যবহৃত স্যালো ইঞ্জিনের বিকট শব্দ, কালো ধোয়া, এলাকার পরিবেশ মারাত্মকভাবে দূষণ করছে। স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে শিশুসহ নানা বয়সের মানুষ। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি কারখানাটি পরিচালনা করতে নিষেধ করা সত্বেও কারখানার কার্যাক্রম অব্যাহত থাকায় অবিলম্বে কারখানার সকল কার্যক্রম বন্ধ ও লাইসেন্সসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রদান না করার দাবি জানিয়ে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং কপিলমুনি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছে শিলেমানপুর গ্রামের মৃত শামছুর রহমান মোড়লের ছেলে পল্লী চিকিৎসক সিরাজুল ইসলাম।

শেয়ার