যশোরে প্রতিবন্ধী ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা, অভিযুক্ত আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে ভিক্ষুকের মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরী মেয়ে ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন। বাড়িওয়ালা ওই মেয়েটিকে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করেছে অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। গত শনিবার ভোরে পুলিশ ‘ধর্ষক’ রানা হোসেনকে (২৬) আটক করেছে। আটক রানা শহরের শংকরপুর পশ্চিমপাড়ার মৃত আক্তার হোসেনের ছেলে।
পুলিশ জানিয়েছে, ভুক্তভোগী কিশোরী মানসিক প্রতিবন্ধী। তার পিতা অসুস্থ হয়ে বর্তমানে বাড়িতে রয়েছেন। আর তার মা বিভিন্ন স্থানে ভিক্ষা করে সংসার চালিয়ে থাকেন। পাশাপাশি তাদের বাড়িওয়ালা রানা হোসেনকে তার স্ত্রী ৭ মাস আগে তালাক দিয়ে চলে গেছেন। এরপর থেকে সে রানা কিশোরীকে প্রেমের প্রস্তাব দিতে থাকে। তাকে বিয়ে করার প্রলোভনও দেখায়। গত ৬ নভেম্বর গভীর রাতে রানা ওই কিশোরীকে কৌশলে ডেকে ঘরের পেছনে নিয়ে ধর্ষণ করে। কিন্তু কিশোরী বিষয়টি পরিবারের কাউকে জানায়নি। এরপর থেকে রানা হোসেন বিভিন্ন সময় তাকে আরো ১০-১২ বার ধর্ষণ করে। গত ২ এপ্রিল কিশোরীর মা মেয়ের শারীরিক অস্বাভাবিক পরিবর্তন দেখে তার কাছে বিষয়টি জানতে চান। এ সময় কিশোরী তার মায়ের কাছে সকল ঘটনা খুলে বলে। পরে গত শুক্রবার ধর্ষণের শিকার কিশোরীর মা বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। শনিবার ভোরে পুলিশ রানা হোসেনকে আটক করে। আরো জানা গেছে, ধর্ষণের শিকার কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় গত শনিবার যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

শেয়ার