পাটকেলঘাটায় জোর পূর্বক মৎস্য ঘেরে থাকার পায়তারা জমির মালিকদের বিক্ষোভ

পাটকেলঘাটা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি ॥ পাটকেলঘাটার কেশা গ্রামের কেশার বিলে মৎস্যঘেরের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরেও জোরপূর্বক ঘেরে থাকার পায়তারার ঘটনায় জমির মালিকরা গতকাল বিকাল ৫টায় বিক্ষোভ করে পাটকেলঘাটা থানায় অভিযোগে দাখিল করেন। অভিযোগে জানা গেছে থানার কেশা বিলে ৭ বছরের জন্য এলাকার জমির মালিকরা গত ১/১/২০১৩ সাল হতে ৩১/১২/২০১৯ সাল পর্যন্ত লিজ প্রদান করেন কেশবপুর উপজেলার সাগর দত্তকাটি গ্রামের কলিম উদ্দীন কবিরাজের ছেলে মনিরুজ্জামানের নিকট । এরপর তিনি লিজের শর্ত ভঙ্গ করে সাবলিজ প্রদান করেন তালা উপজেলার বারাত গ্রামের আফছার উদ্দীনের পুত্র তৌহিদুর রহমান,নোয়াকাটি গ্রামের মৃত নয়েজ সরদারের ছেলে আলাউদ্দীন ও কেশা গ্রামের মৃত দলিল উদ্দীনের ছেলে নুরুল ইসলামের নিকট।
এদিকে ইতোমধ্যে মৎস্যঘেরের ডিডের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও পুনরায় তারা ঘেরে থাকার জন্য পায়তারা চালাচ্ছেন। এ ব্যাপারে কেশা গ্রামের রফিকুল ইসলাম,মনি,সামসুর রহমান,আব্দুল আহাদ সহ একাধিক জমির মালিক এ প্রতিবেদককে জানান মৎস্য ঘেরেরে মেয়াদ উত্তীর্ন হলেও ঘের মালিকরা পুনরায় ঘেরে থাকার জন্য নানা রকম ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। তারা বৃহস্পতিবার মৎস্যঘেরের বাসা আগুনে পুড়িয়ে মামলা করার ঘড়যন্ত্র করছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার এলাকার লোকজন ঘের মালিকদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে পাটকেলঘাটা থানায় অভিযোগ দাখিল করেন। এ সময় কুমিরা ইউপি চেয়ারম্যান ও কুমিরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আজিজুল ইসলাম বলেন আমি এলাকার জমির মালিকদের সাথে কথা বলে জানতে পারলাম যে অধিকাংশ জমির মালিকরা মৎস্য ঘের করতে চায় না তারা চাষাবাদ করতে চায়। এবিষয়ে পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ কাজী ওয়াহিদ মুর্শেদ জানান জমির মালিকরা থানায় এসেছিল আগামী রোববার উভয় পক্ষকে নিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তি করা হবে।

শেয়ার