দেশ বাঁচাতে বাম-গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠিত করতে হবে : মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম

বাগেরহাট প্রতিনিধি ॥ দেশ আজ মহাসংকটের মধ্যে চলছে। মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিলো এ দেশকে ফুলের মত সুন্দর ভাবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে। কিন্তু আজ সেই দেশ পরিণত হয়েছে ক্যসিনো বাগানে। সর্বগ্রাসী দুর্নীতি, লুট-পাটে দেশ নিমজ্জিত হয়েছে। সামাজিক অবক্ষয় বেড়েছে ব্যাপক হারে। দেশকে এই মহাসংকট থেকে উদ্ধার করতে হলে, চলমান দুঃশাসনের অবসান ঘটিয়ে বাম-গণতান্ত্রিক শক্তিকে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করতে হবে। আর সেই কাজে নেতৃত্ব দিতে হবে তরুণ কমিউনিস্টদের। খুলনা বিভাগীয় যুব কমিউনিস্ট ক্যাম্প উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম।
বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টায় বাগেরহাট এসিলাহা মিলায়তনে বাংলাদেশ কসিউনিস্ট পার্টি বাগেরহাট জেলা কমিটির সভাপতি কমরেড তুষার কান্তি বসুর সভাপতিত্বে অুনষ্ঠিত দু’ দিনব্যাপী এই বিভাগীয় যুব কমিউনিস্ট ক্যাম্পে বিশেষ অতিথি ছিলেন, কমরেড রতন সেন পাবলিক লইব্রেরীর সভাপতি ও বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মুজিবুর রহমান।
সিপিবি বাগেরহাট জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ফররুখ হাসান জুয়েলের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিপিবি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও খুলনা জেলা কমিটির সভাপতি ডাঃ মনোজ দাস, কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা অরুনা চৌধুরী, এসএ রশীদ, কিবরিয়াসহ খুলনা বিভাগীয় বিভিন্ন জেলার সিপিবি,র নেতৃবৃন্দ।
উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথি আরো বলেন, ইতিমধ্যে দেশ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। এই অবস্থা যদি চলতে থাকে তাহলে দেশ ধ্বংসের দিকে চলে যাবে, আমাদের অস্তিত্ববিলীন হয়ে যাবে। দেশকে রক্ষা করতে হবে। আমাদের মুক্তিযুদ্ধ এখনো শেষ হয়নি। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হলে বামপন্থিদের নেতৃত্বে একটা সৎ রাজনীতির আদর্শবাদীর সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সেটা উপর থেকে হবে না, নিচের থেকে ঘরে ঘরে যেয়ে মানুষকে তৈরি করে ফেলতে হবে। সেটার জন্য রাজনৈতিক দল, গণসংগঠন, আন্দোলন, সংগ্রাম, ১৬ কোটি মানুষ ৯৯ ভাগ শোষিত, বঞ্চিত একভাগ শোষক লুটেরার বিরুদ্ধে আমাদের আবার বিদ্রোহ করতে হবে।
২০ বছরে পাকিস্তান বাঙালীর সম্পদ বিদেশে যতটা না পাচার করেছে, গত ১০ বছরে তার ১০ গুণ সম্পদ আমাদের দেশ থেকে পাচার হয়ে গেছে। দেশের সম্পদ বিদেশে পাচার করা যাবে না এই কথা বলে আমরা অস্ত্র তুলে ধরেছিলাম। সেইটা যদি ন্যায় সঙ্গত হয়ে থাকে তাহলে আজকে যারা বাংলার সম্পদ বিদেশে পাচার করে নিয়ে যাচ্ছে সেই এক শতাংশ লুটেরা ধনিক তাদের দালালরা তাদের বিরুদ্ধেও ন্যায় সঙ্গত, যুক্তিসংগত লড়াই, বিদ্রোহ সামনে। সমসাময়িক এসব ঘটনাবলিকে কেউ অস্বীকার করতে পারে না। সেজন্য আমাদের সমাজের মানুষদের একটা বিশুদ্ধ জায়গায় নিয়ে যেতে হবে। সেজন্য মানুষের উপর মানুষের শোষণকে বন্ধ করে একটা সাম্যের সমাজ, একটা ইনসাফের সমাজ গড়তে নতুন প্রজন্মের যুবকদের এগিয়ে আসতে হবে। এটা করা গেলে কমিউনিস্ট পার্টির আয়োজনে অনুষ্ঠিত যুব কমিউনিস্ট ক্যাম্প সফল হবে বলে মনে করেন পার্টির নেতা।
দুই দিন ব্যাপী এই যুব ক্যাম্পে খুলনা বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে নির্বাচিত ৬০ জন তরুণ কমিউনিষ্ট কর্মি এতে অংশ নেন।

শেয়ার