যশোরে ছাত্রাবাস থেকে অস্ত্র-গুলি ও মাদক উদ্ধার, ১৬ ছাত্র থানায়

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর শহরতলীর শেখহাটিতে একটি ছাত্রাবাসে অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। এসময় সেখান থেকে বিপুল পরিমান অস্ত্র-গুলি ও মাদকদ্রব্য উদ্ধারসহ ১৬ ছাত্রকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় এনেছে পুলিশ। মঙ্গলবার গভীর রাতে ও বুধবার দুপুরে দুই দফায় এ অভিযান চালানো হয়।
কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ তাসমীম আলম বলেছেন, শহরতলীর শেখহাটি জামরুলতলার একটি ছাত্রাবাসে সন্ত্রাসীরা বিপুল পরিমাণে অস্ত্র মজুদ রেখেছে বলে গোপন সূত্রে জানতে পারেন। এ খবরে মঙ্গলবার গভীর রাতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গোলাম রব্বানী শেখ ও কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান এ অভিযানে অংশ নেন। টিনের ছাউনির ওই ছাত্রাবাসের ১০টি রুমে রাত আড়াইটা পর্যন্ত তল্লাশি চালিয়ে একটি শর্টগান, একটি ওয়ান শ্যুটারগান, ৫ রাউন্ড বন্দুকের গুলি, ৩টি বার্মিজ চাকু, ২টি রামদা, দেড়শ’ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, এক কেজি গাঁজা, ৫টি লোহার রড ও পাইপ, ৫টি ককটেল, ২টি মোটরসাইকেল, ৫ বোতল বিদেশি মদ, বোমা তেরির বিভিন্ন সরঞ্জাম এবং বেশ কিছু কনডমও উদ্ধার করা হয়।
পুলিশের আরেকটি সূত্র জানা গেছে, ছাত্রাবাসের একটি রুমে মূলত এসব অস্ত্র-গুলি ও মাদকদ্রব্য পাওয়া যায়। ওই রুমে যশোরে পলিটেকনিক ইনসটিটিউটের ছাত্র তৌফিক এলাহী, আবু হেনা রোকন ও রাফিউন থাকতেন। তাদেরকে ও আটক করা হয়েছে।
পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ তাসমীম আলম আরো জানান, রাতে শেখহাটিতে সন্ত্রাসী জুয়েলদের বাড়িতেও তারা অভিযান চালিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানে কোনকিছু পাওয়া যায়নি। তবে রাত থেকেই ওই ছাত্রাবাস তারা ঘিরে রেখেছিলেন। বুধবার দুপুরে তারা ফের তল্লাশি চালান। এ সময় ওই ছাত্রাবাস থেকে পিস্তলের একটি ম্যাগজিন, পিস্তলের ৩ রাউন্ড গুলি, একটি বার্মিজ চাকু এবং একটি রামদা উদ্ধার করেন। মঙ্গলবার ও বুধবার দু’দফা অভিযানে অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য উদ্ধারের ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় মামলা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

শেয়ার