যশোর পৌরসভায় অর্ন্তভুক্ত হতে চায় না চার ইউনিয়নবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর পৌরসভায় অর্ন্তভূক্ত না হতে সদর উপজেলার চারটি ইউনিয়নের মানুষ মানববন্ধন করেছে। সোমবার সকালে শহরের কালেক্টরেট চত্বরে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে যশোর সদরের উপশহর, চাঁচড়া, ফতেপুর ও রামনগর ইউনিয়নের কয়েকশ’ বাসিন্দা অংশ নেয়। মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন তারা। এছাড়া এসব এলাকার যেসব স্থান পৌরসভায় অর্ন্তভূক্তের সিদ্ধান্ত হয়েছে সেটি বাতিলের দাবিতে স্মারকলিপি দেওয়া হয়। জেলা প্রশাসক বরবার এই স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে। গতকাল বেলা এগারটার দিকে এই মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু হয়। বিক্ষোভাকারীরা পৌরসভায় অর্ন্তভূক্ত না করার দাবি সম্বলিত ব্যানার হাতে লেখা পোস্টার প্লাকার্ড নিয়ে মানববন্ধনে যোগ দেন। মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীদের এসময় ‘পৌরসভা চাই না, যেমন আছি ভালো আছি’ এ রকম নানা ধরণের শ্লোগান দিতে দেখা যায়। উপশহর ইউনিয়নের বিরামপুর, কিসমত নওয়াপাড়া ও শেখহাটি এলাকার বাসিন্দাদের পক্ষে জেলা প্রশাসক কাছে দেওয়া এই স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, এসব স্থান পৌরসভায় অর্ন্তভূক্ত হলে হোল্ডিং ট্যাক্স, কর ও বিভিন্ন মাশুলের হার বহুগুণ বৃদ্ধি পাবে। যেটি এখানকার বসবাসকারীদের জীবনযাত্রায় বড় ধরণের প্রভাব ফেলবে। তাই এসব স্থান পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত না করে আগের মতন উপশহর ইউনিয়নে বহাল রাখার দাবি জানানো হয়।
জানা গেছে স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন ২০০৯ অনুযায়ী যশোর পৌরসভার এই সীমানা সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেয়। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় যার গেজেট প্রকাশ করে। গত ২৪ আগস্ট শনিবার এই গেজেট প্রকাশিত হয়। যশোর সদরের উপশহরের বিরামপুর, নওয়াপাড়ার শেখহাটি, কিসমত নওয়াপাড়া ও নওদাগ্রাম, আরবপুরের খোলাডাঙ্গা, ফতেপুরের ঝুমঝুমপুর ও বালিয়াডাঙ্গা, রামনগর ইউনিয়নের রামনগর, মুড়লী ও মোবারককাঠি এবং চাঁচড়া ইউনিয়নের চাঁচড়ার বেশ কিছু অংশ প্রকাশিত গেজেটে যশোর পৌরসভায় অর্ন্তভূক্ত হয়েছে। উপশহর, নওয়াপাড়া, আরবপুর, ফতেপুর, রামনগর ও চাঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদের অর্ন্তভূক্ত মোট ৩ হাজার ৪৬৩টি দাগ পৌর এলাকার সাথে যুক্ত হচ্ছে। যার মধ্যে থাকছে উপশহর ইউনিয়নের বিরামপুর মৌজার ১১৩ দাগ, শেখহাটি মৌজার ১৮৫ দাগ ও কিসমত নওয়াপাড়ার ৬৯৭ দাগ। এদিকে নওয়াপাড়া ইউনিয়নের নওদাগ্রামের ১ থেকে ৩৫০ দাগ। আরবপুর ইউনিয়নের খোলাডাঙ্গার ২৩৫ দাগ, ফতেপুর ইউনিয়নের ঝুমঝুমপুর মৌজার ৩১০ দাগ, বালিয়াডাঙ্গা মৌজার ৪৪০ দাগ, রামনগর ইউনিয়নের রামনগর মৌজার ৪৭৮ দাগ, মুড়লী মৌজার ১৬২ দাগ, মোবারককাঠি মৌজার ৩৫৫ দাগ ও চাঁচড়া ইউনিয়নের চাঁচড়া মৌজার ৪১৩ দাগ।

শেয়ার