শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষ স্বস্তি ও শান্তিতে থাকে: শাহীন চাকলাদার

এস আর সাঈদ, কেশবপুর (যশোর) থেকে॥ যশোর-৬ কেশবপুর সংসদীয় আসনের উপ-নির্বাচনে উপলক্ষে দলীয় প্রার্থী ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার বলেছেন, দেশের শতকরা ৮০ ভাগ মানুষ বিশ্বাস করে শেখ হাসিনার সরকার রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষ স্বস্তিতে থাকে; শান্তিতে থাকে। পরিবার-পরিজনকে নিয়ে ভালোমন্দ খেয়ে বসবাস করতে পারে। দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়। আওয়ামী লীগ যদি ঐক্যবদ্ধ থাকে, আওয়ামী লীগ যদি শক্তিশালী হয়, তবে সরকারও শক্তিশালী হয়। ঐক্যের কোনো বিকল্প নাই। নেত্রীর দেওয়া নৌকা আগামী ২৯ মার্চ ভোটের মাধ্যমে বিজয়ী করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, বিএনপি, জাতীয় পার্টি দেশের ক্ষমতায় ছিল, কিন্তু তারা দেশের মানুষের কল্যাণে কোনো কাজ করেনি। যে কারণে দেশের মানুষ এখন একধারায় ফিরে এসেছে। তারা নৌকার বাইরে ভোট দিতে চায় না।
এপ্রিল মাস থেকে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা শুরু হবে। খোলা মাঠে তৃণমূলের মতামতের মাধ্যমে সভাপতি-সম্পাদক নির্বাচিত করতে হবে। নারীদের সম্মান রক্ষা করে প্রতিটি কমিটিতে ৩০ ভাগ নারী সদস্য অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। সনাতন ধর্মের লোকদেরও প্রতিটি কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উন্নয়ন কর্মকাণ্ড পরিচালিত হবে। চেন অব কমান্ড থাকতে হবে। কেশবপুর উপজেলাবাসী যাতে ভালো থাকতে পারে তার দেখভাল করবে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। উন্নয়ন দেবে আওয়ামী লীগ সরকার। আমরা সেই আওয়ামী লীগের সাথে থেকে উন্নয়নের কাজ করে যাবো। শনিবার দুপুরে কেশবপুর উপজেলার ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আব্দুল আলিমের সভাপতিত্বে ও আব্দুর রশিদের সঞ্চালনায় উপজেলার গোপালপুর পেট্রোল পাম্প সংলগ্ন চত্বরে অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু, কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমীন, সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা, সহসভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম পিটু, পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত ও ত্রিমোহিনী ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান আনিস। আরো বক্তব্য রাখেন ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা শ্যামল মল্লিক ও তবিবুর রহমান মিলন।
অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব একেএম খয়রাত হোসেন, সহসভাপতি গোলাম মোস্তফা, যশোর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম, অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার ওলিয়ার রহমান, যশোর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি নিয়ামত উল্লাহ, সাবেক সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী, সুফলাকাটি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ মাস্টার, বিদ্যানন্দকাটি ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন, কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইউপি সদস্য গৌতম রায়, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি সৈয়দ নাহিদ হাসান, সাধারণ সম্পাদক রমেশ চন্দ্র দত্ত, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী রাবেয়া ইকবাল, সাধারণ সম্পাদক মমতাজ বেগম, উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কাজী আজাহারুল ইসলাম মানিক, ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক ওয়াহিদুজ্জামান মিন্টু, ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহ্বায়ক আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ।
পরে বিকালে দলীয় কার্যালয়ে কেশবপুর সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বর্ধিতসভা অনুষ্ঠিত হয়। এসভায় যশোর-৬ কেশবপুর সংসদীয় আসনের উপনির্বাচন উপলক্ষে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার বলেন, ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ অনেক বেশি শক্তিশালী। আর শক্তিশালী আওয়ামী লীগকে কেউ দমাতে পারে না। আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মীরা আমার ভাই। আমি দলকে শক্তিশালী করতে চাই। তৃণমূলসহ আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মীদের আমি সর্বোচ্চ মূল্যায়ন করি। আমি এক দিনে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হয়নি। দলীয় নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করে আমি এই পর্যায়ে এসেছি। আর কেশবপুর উপজেলা একটি সুখের জায়গা, শান্তির জায়গা। সকলে মিলে আমরা এই সুখ আর শান্তিকে ভাগাভাগি করে নেবো। নৌকা হচ্ছে উন্নয়নের প্রতীক। কেশবপুরে অসমাপ্ত উন্নয়নকাজ দুর্বার গতিতে চালিয়ে নিতে আগামী ২৯ মার্চ সর্বোচ্চ ভোটে নৌকাকে জিতিয়ে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।
কেশবপুর সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. মনিমোহনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেনের পরিচালনায় দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত কর্মী সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমীন, সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা, পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এড. রফিকুল ইসলাম পিটু ও সাংগঠনিক সম্পাদক গৌতম রায়। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দপ্তর সম্পাদক মফিজুর রহমান, সদস্য শাহাদাৎ হোসেন, সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন, কেশবপুর সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আফছার উদ্দীন গাজী, ১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি, ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, কেশবপুর সদর ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক লিটন হোসেন প্রমুখ।
কর্মীসভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রবীণ আওয়ামী লীগনেতা সন্তোষ দাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত, কোষাধ্যক্ষ সন্তোষ কুমার মুখার্জী, সদস্য আলতাফ হোসেন বিশ্বাস, সুফলাকাটি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ মাস্টার, বিদ্যানন্দকাটি ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন, পাঁজিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মুকুল প্রমুখ।

শেয়ার