ভ্রুণ হত্যার অভিযোগে যশোর আদালতে স্বামীসহ চারজনের বিরুদ্ধে নারীর মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ভ্রুণ হত্যার অভিযোগে যশোরে স্বামীসহ চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার যশোর শহরতলীর মুড়লীর আবুল বাশারের মেয়ে রাবেয়া খাতুন এ মামলা করেছেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মঞ্জুরুল ইসলাম মামলাটি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দিয়েছেন।
আসামিরা হলো, বাঘারপাড়া উপজেলার হুলিহট্ট গ্রামের আলতাফ হোসেনের ছেলে গৃহবধূর স্বামী ফয়সাল হোসেন, শাশুড়ি রেক্সনা খাতুন, ননদ শাহিনা বেগম এবং যশোর শহরের নীলগঞ্জের মৃত মোন্তাজ শেখের ছেলে ডাক্তার মহিদুল ইসলাম।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, আসামি ফয়সাল হোসেন ২০১৮ সালের ২ জুলাই রাবেয়া খাতুনকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবিতে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিল। গত বছরের ১৯ আগস্ট আল্ট্রাসনোগ্রাফি করে রাবেয়া নিশ্চিত হন তিনি অন্তঃসত্ত্বা। এ বিষয়টি তার স্বামীর বাড়ির লোকজন জানতে পেরে গর্ভের সন্তান নষ্ট করার জন্য তাকে চাপ দিতে থাকে। ওই বছরের ২১ অক্টোবর স্বামী-শাশুড়ি ও ননদ তাকে মারপিট করলে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। এরপর নীলগঞ্জের ডাক্তার মনিরুল ইসলামের কাছে এনে চিকিৎসার নামে গর্ভপাত করানোর ওষুধ খাওয়ায়ে সন্তান নষ্ট করে ফেলে। পরে শহরের একটি ক্লিনিকে চিকিৎসা শেষে তিনি আদালতে এ মামলা করেছেন।

শেয়ার