পাইকগাছায় পাকা রাস্তার ইট তুলে সীমানা প্রাচীর নির্মাণচেষ্টার অভিযোগ

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥ পাইকগাছা পৌরসভার স্যানিটারি ইন্সপেক্টর ইমদাদুল হকের বিরুদ্ধে এবার চুক্তি ভঙ্গ করে পাকা রাস্তার ইট তুলে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে সংসদ সদস্য, স্থানীয় প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগী কামরুল ইসলাম ও প্রতিবেশীরা।
প্রাপ্ত অভিযোগে জানাগেছে, পৌরসভার স্যানিটারি ইন্সপেক্টর ইমদাদুল হক ৩নং ওয়ার্ডের বান্দিকাটী এলাকায় জায়গা জমি কিনে বসবাস শুরু করেন। তার বসতবাড়ীতে যাতায়াতের সুবিধার্থে প্রতিবেশী আব্দুল হকের নিকট থেকে ১ শতক জায়গা রাস্তা করার জন্য বায়নাপত্র করে। এরপর কামরুল ও আব্দুল হকের সাথে আধা শতক জায়গা ফেরত দিবেন মর্মে ইমদাদুল হক চুক্তিতে আবদ্ধ হন। এর মধ্যে ৭০ ফুট লম্বা যাতায়াতের রাস্তাটি সকলের যাতায়াতের সুবিধার্থে পৌরসভা থেকে ইটের সলিং (পাকা) করণ করা হয়। এদিকে কামরুল ইসলাম গাজী জানান, চুক্তিপত্র উপেক্ষা করে ইমদাদুল হক গত বছরের এপ্রিল মাসে পাকা রাস্তার ওপর দিয়ে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করার চেষ্টা করে। আমরা প্রতিবেশীসহ এলাকাবাসী বাঁধা দিলে প্রাচীর নির্মাণ থমকে যায়। এরপর ইমদাদুল হক পৌরসভার ইটের রাস্তা তুলে ফেলে আবারও সীমানা প্রাচীর নির্মাণের চেষ্টা করছেন।
এ ব্যাপারে ইমদাদুল হক জানান, আব্দুল ও কামরুলের সঙ্গে আমার কোন চুক্তিপত্র হয়নি। যেখানে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হচ্ছে তা আমার রেকর্ডীয় জায়গা। পৌরসভা কর্তৃক রাস্তা পাকাকরণ করায় অনেক ঝামেলা হচ্ছিল। এজন্য আমি পৌরসভায় আবেদন করলে বিষয়টি কাউন্সিলরের ওপর দায়িত্ব অর্পন করা হয়। পরে কাউন্সিলর গাজী আব্দুস সালামের মাধ্যমে রাস্তার সমস্ত ইট তুলে পৌরসভার অনুকূলে ফেরত দিয়েছি। সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হলে অত্র এলাকার অসংখ্য পরিবারের যাতায়াতের পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশংকায় এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার ও এলাকাবাসী।

শেয়ার