কাশিমপুর কারাগারে হাজতির বিয়ে

সমাজের কথা ডেস্ক॥ নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এ বন্দি এক হাজতির বিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বর হলেন গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা চিনাশুখানিয়া এলাকার আব্দুল হকের ছেলে মো. স্বপন মিয়া এবং কনে একই এলাকার আব্দুল কাদিরের মেয়ে আয়শা খাতুন।

কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, আদালতের নির্দেশের শনিবার বিকেল ৩টার দিকে কারাগারের অফিস কক্ষে এই বিয়ে হয়। তবে আদালতের নির্দেশ সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারেনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

বর ও কনের পরিবারের বরাত দিয়ে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এর জেলার বাহারুল ইসলাম বলেন, প্রায় দুই বছর আগে স্বপনের সঙ্গে একই এলাকার আয়শা খাতুনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হয়। একপর্যায়ে আয়শা খাতুন গর্ভবর্তী হন এবং এক বছর আগে তার ঘরে পুত্র সন্তান জন্ম নেয়।

“কিন্তু পরবর্তীতে স্বপন মিয়া তাদের ওই সম্পর্কের বিষয়টি অস্বীকার করেন। উপায় না পেয়ে আয়শা শ্রীপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। স্বপন ওই মামলায় গ্রেপ্তারের পর ২০১৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর থেকে ওই কারাগারে বন্দি রয়েছেন।

পরে স্বপন আয়শাকে স্ত্রীর মর্যাদা এবং শিশুকে পিতৃত্বের স্বীকৃতি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে ২৮ জানুয়ারি ওই মামলায় উচ্চ আদালত তাদের দুজনের বিয়ের নির্দেশ দেন।”

জেলার জানান, পুলিশি হেফাজনে থাকা অবস্থায়ই তাদের বিয়ে সম্পন্ন হওয়ার পর বিয়ের প্রমাণপত্র আদালতে পাঠাতে বলা হয়। কাগজপত্র বৃহস্পতিবার এ কারাগারে পৌঁছালে আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী শনিবার বিকেলে বর-কনে এবং তাদের বাবা-মাসহ স্বজনদের উপস্থিতিতে কারাগারে ধর্মীয় নিয়ম অনুযায়ী তাদের বিয়ে সম্পন্ন করা হয়েছে।

শেয়ার