মন্ত্রিসভায় রদবদল
তিন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দফতর পুনর্বণ্টন

সমাজের কথা ডেস্ক॥ নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের বছর পূর্তির পর বড় রদবদলের গুঞ্জনের মধ্যে কেবল তিন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দপ্তর পরিবর্তন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই পরিবর্তনে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় হারিয়েছেন শ ম রেজাউল করিম। তাকে ওই দপ্তর থেকে সরিয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া দপ্তর পরিবর্তন হয়েছে প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু ও শরীফ আহমেদের।
মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী খসরুকে পাঠানো হয়েছে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে। সমাজকল্যাণ থেকে শরীফকে নেওয়া হয়েছে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী করে। এই রদবদলের ফলে এখন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে কোনো পূর্ণ মন্ত্রী নেই। প্রতিমন্ত্রী হিসেবে থাকছেন শরীফ। বৃহস্পতিবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে তিন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পুনর্বণ্টনের প্রজ্ঞাপন হয়।
আওয়ামী লীগ সমর্থক আইনজীবীদের নেতা শ ম রেজাউল এবারই প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন, সেই সঙ্গে মন্ত্রিসভায় ঢুকে গৃহায়ন ও গণপূর্তের বড় দায়িত্ব পেয়েছিলেন। গত বছরের ৭ জানুয়ারি টানা তৃতীয় মেয়াদে আওয়ামী লীগের সরকার গঠনের পর এটা মন্ত্রিসভায় দ্বিতীয় রদবদল। এর আগে দুটি রদবদলেও বড় নড়াচড়া হয়নি।
এই দফায় শুরুতে ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ প্রতিমন্ত্রী এবং তিনজন উপমন্ত্রীকে নিয়ে মন্ত্রিসভা সাজিয়েছিলেন শেখ হাসিনা।
পাঁচ মাস পর গত বছরের ১৯ মে মন্ত্রিসভায় প্রথম রদবদল আনেন তিনি। তাতে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে দায়িত্বরত মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের দায়িত্ব ভাগ করে দেওয়া হয়।
স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে তথ্য মন্ত্রণালয়ে বদলি করা হয়। আর মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারকে শুধু ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের দায়িত্ব দিয়ে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে এই মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হয়।
এছাড়া স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম ইসলামকে স্থানীয় সরকার বিভাগে রেখে প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টচার্য্যকে শুধু পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের দায়িত্ব দেন শেখ হাসিনা।
এরপর গত ১৩ জুলাই প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদকে পদোন্নতি দিয়ে পূর্ণমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের গত কমিটির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরাকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী।
দ্বিতীয়ধাপে একজনের পদোন্নতি এবং একজনের অন্তর্ভুক্তিতে মন্ত্রিসভায় এখন মন্ত্রীর সংখ্যা ২৫ জন। এছাড়াও রয়েছেন ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী এবং তিনজন উপমন্ত্রী। সরকারের বছর পূর্তিতে মন্ত্রিসভায় বড় রদবদলের গুঞ্জন চলছিল; তার মধ্যেই ছোটখাটো এই পরিবর্তন এল।

শেয়ার