ডাচবাংলা ব্যাংকে গ্রাহকের টাকা আত্মসাৎ ম্যানেজারসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ গ্রাহকের একাউন্ট থেকে টাকা আত্মসাতের ঘটনায় ডাচবাংলা ব্যাংক যশোর শাখার ম্যানেজারসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। যশোরের সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে বৃহস্পতিবার এ মামলা হয়েছে। মামলা করেছেন যশোর সদর উপজেলার শাহপুর গ্রামের মৃত আয়ুব আলীর ছেলে আনিছ রানা। আসামিরা হলেন, গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার শফিপুর গ্রামের শোভন চন্দ্র সূত্রধর, ঢাকার মিরপুর পরীবাগের ৪৪/৫ নম্বর বাড়ির জয়ন্তী রাণী, ডাচবাংলা ব্যাংকের যশোর শাখার বর্তমান ম্যানেজার সাঈদুর রহমানসহ অজ্ঞাত পরিচয়ের একব্যক্তি। মামলায় চারজনকে সাক্ষী করা হয়েছে।
বাদী আনিছ রানা মামলায় উল্লেখ করেছেন, তার নামে ডাচবাংলা ব্যাংকে দু’টি একাউন্ট রয়েছে। একাউন্ট দু’টি হচ্ছে, ১৬৩১৫১০১০১৩৪১ ও ৭০১৭০১৪৬৯৬৫৫৩। দ্বিতীয় একাউন্টটি এজেন্ট ব্যাংকিং নিউমার্কেট যশোর শাখায় রয়েছে। প্রথমটি ডাচবাংলা ব্যাংক আরএন রোড শাখায়। যেটি ফ্রিজ একাউন্ট (বন্ধ)। গত বছরের পহেলা জুন সচল একাউন্টে ব্যালেন্স ছিল ২৩ হাজার ১২ টাকা ৫০ পয়সা। ১০ জুন চারজন পরস্পর যোগসাজস করে ডাচবাংলা ব্যাংকের ০১৮৮০১১৫৬৯৬১ রকেট নম্বরে স্থানান্তরের মাধ্যমে উত্তোলন করে নেয়। বাকি ১৩ হাজার টাকা বাদীর ১৬৩১৫১০১০১৩৪১ নম্বর ফ্রিজ একাউন্টে স্থানান্তর করে তুলে নেয়া হয়েছে। কেবল তাই না, অজ্ঞাত পরিচয়ের ওই ব্যক্তির একাউন্ট নম্বর হতে সাড়ে তিন হাজার টাকা বাদীর ফ্রিজ একাউন্টে স্থানান্তর করে আত্মসাৎ করেছেন উল্লেখিত চারজন।
মামলায় বাদী উল্লেখ করেছেন, ১৩ জুন তিনি তার ৭০১৭০১৪৬৯৬৫৫৩ নম্বর একাউন্টে নতুন করে ২৯ হাজার টাকা জমা দেন। চার আসামি যোগসাজস করে ১০ হাজার টাকা বাদীর ফ্রিজ একাউন্টে, ১০ হাজার টাকা এক নম্বর আসামির ০১৭৫৪৪৪৫৯১৬২ নম্বরে এবং নয় হাজার টাকা তিন নম্বর আসামির ১৭৮১৫১০১৭৩৬১১ নম্বরে স্থানান্তর করে উত্তোলন করে নিয়েছে ১৬ জুন।
বাদী আনিছ রানা তার খোঁয়া যাওয়া টাকার ব্যাপারে ডাচবাংলা ব্যাংক যশোর শাখার ম্যানেজার সাঈদুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ফেরত দেয়ার কথা বলেন। কিন্তু কিছুদিন পার হলে তিনি তা ফেরত দিবেন না বলে জানিয়ে দেন। এরপর মামলা করেন আনিছ রানা।

শেয়ার