যশোরে এক মাস আগেই চলে এসেছে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের নতুন বই

বই উৎসবে মাতবে সাড়ে চার লাখ শিক্ষার্থী

বই উৎসব
ছবি: বই উৎসব

জাহিদ হাসান
যশোরে চলে এসেছে নতুন বই। নতুন বছরের প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিতে এবার প্রায় এক মাস আগেই চলে এসেছে প্রথম শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণির বই। উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে বইগুলো ইতোমধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানরা বুঝে নিতে শুরু করেছেন। ফলে সারা দেশের মত যশোরের সরকারি ও বেসরকারি প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের প্রায় সাড়ে চার লক্ষ শিক্ষার্থী বছরের প্রথম দিনে বই উৎসবের আনন্দে ভাসবে।
শিক্ষা অফিস সূত্র মতে, যশোর জেলায় মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৩০ লক্ষ সাত হাজার একশ’ ৯৭ টি বই এবং প্রাথমিকে ১৪ লক্ষ ৫৫ হাজার ৭৫ টি বই সরবরাহ করা হয়েছে। প্রায় ৫৩ লক্ষ ১৮ হাজার ২১৭টি বই বিতরণ করা হবে জেলার প্রায় সাড়ে চার লক্ষ শিক্ষার্থীর মাঝে। মাধ্যমিকে যশোরের আট উপজেলায় সাড়ে পাঁচশ’ বিদ্যালয়ের মধ্যে শার্শা উপজেলায় তিন লক্ষ ৪৮ হাজার বই, সদর উপজেলায় ৮ লক্ষ ৭১ হাজার একশ, মণিরামপুর উপজেলায় ৪ লক্ষ ৬৯ হাজার বই রয়েছে। এছাড়া বাঘারপাড়া উপজেলায় এক লক্ষ ৯৬ হাজার একশ’ ৯৭টি, ঝিকরগাছা উপজেলায় দুই লক্ষ ৮৭ হাজার সাতশ’ ৭৫ বই, চৌগাছা উপজেলায় দুই লক্ষ ৯৫ হাজার ৬শ’, কেশবপুর উপজেলায় দুই লক্ষ ২৪ হাজার ২শ’ ২৫ টি বই, অভয়নগর উপজেলায় তিন লক্ষ ১৪ হাজার ৯শ’, সদর উপজেলায় ৮ লক্ষ ৭১ হাজার একশ বই বিতরণ করা হবে। আর দাখিলে যশোর জেলায় আট লক্ষ ৬৩ হাজার ৯৯ টি বই সরবরাহ করেছে শিক্ষা অফিস।
অন্যদিকে, যশোরের আট উপজেলায় প্রাথমিকে এক হাজার দুইশ’ ৮৯টি বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত ১৪ লক্ষ ৫৫ হাজার ৭৫টি বই সরবরাহ করা হয়েছে। এর মধ্যে অভয়নগর উপজেলায় এক লক্ষ নয় হাজার নয়শ’ ৯৮ টি বই, কেশবপুর উপজেলায় এক লক্ষ ৩৭ হাজার পাঁচশ’ ৫০ টি, চৌগাছা উপজেলায় এক লক্ষ ১৬ হাজার নয়শ’ ১৬ টি বই, ঝিকরগাছা উপজেলায় এক লক্ষ ৭৮ হাজার একশ’ ১৯ টি, বাঘারপাড়া উপজেলায় এক লক্ষ এক হাজার দুইশ’ ৭১টি, মণিরামপুর উপজেলায় দুই লক্ষ ১৪ হাজার পাঁচশ ১৮ বই, শার্শা উপজেলায় ১৯ লক্ষ পাঁচশ বই, সদর উপজেলায় চার লক্ষ ছয় হাজার দুইশ’ বই সরবরাহ করা হয়েছে।

যশোর জেলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক একে এম গোলাম আযম বলেন, স্কুলের তৃতীয় শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত সকল শিক্ষার্থীকে নতুন বই দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। চাহিদামত বই ইতোমধ্যে বিদ্যালয়ে চলে এসেছে।
বই বিতরণ প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাইলে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ অহিদুল আলম জানান, এক মাস আগেই জেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ইতোমধ্যে বই পৌঁছানো শুরু হয়েছে। ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বই উৎসব করে বই বিতরণের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শিক্ষকদের চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যালয়গুলোতে বই পৌঁছে গেছে। আমরা বিগত সময়ের মত আনন্দ ও উৎসবমুখর পরিবেশে বছরের শুরুতে বিনামূল্যে সরকারের দেওয়া নতুন বই বিতরণ করব।
এ বিষয়ে যশোর জেলা শিক্ষা অফিসার এএসএম আব্দুল খালেক জানান, একসময় যশোর অঞ্চলে বইয়ের জন্য মাসের পর মাস শিক্ষক ও অভিভাবকদের অপেক্ষা করতে হতো। অনেক অভিভাবকের নতুন বই কেনার সামর্থ্য ছিল না। কিন্তু বর্তমান সরকার এখন সম্পূর্ণ বিনামূল্যে বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিচ্ছে। শিশুরা নতুন বছরে নতুন বই পেয়ে পড়ালেখায় মনোনিবেশ করবে।