পেট্রোল পাম্প ধর্মঘটে তেল বিক্রি বন্ধ তিন বিভাগে, দুর্ভোগ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ তেল বিক্রির কমিশন বৃদ্ধিসহ ১৫ দফা দাবিতে পেট্রোল পাম্প ও ট্যাংক লরি মালিক-শ্রমিকদের কর্মবিরতিতে খুলনা, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগে জ্বালানি তেল বিক্রি বন্ধ রয়েছে।
রোববার সকাল ৬টা থেকে বাংলাদেশ পেট্রোল পাম্প ও ট্যাংক লরি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ ও জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতির ডাকে ২৬ জেলায় অনির্দিষ্টকালের এই কর্মবিরতির কারণে যানবাহন চলাচল বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে।
পেট্রোল পাম্প ও ট্যাংক লরি মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি এম এ মোমিন দুলাল বলেন, তাদের ১৫ দফা দাবি পূরণ করতে সরকারকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু জ্বালানি মন্ত্রণালয় কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় তারা ধর্মঘটে যেতে ‘বাধ্য হয়েছেন’।
বাংলাদেশ পেট্রোল পাম্প ও ট্যাংক লরি মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি এম এ মোমিন দুলাল বলেন, “আমাদের মূল দাবি তেলের কমিশন। আমরা তেল উত্তোলন, বিপণন এবং পরিবহন করি, কিন্তু উৎপাদন করি না। কিন্তু কল কারখানা আইনে শব্দ দূষণসহ অনেক বিষয়ই আমাদের উপর চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে।” দাবি পূরণ না হলে তিন বিভাগের বাইরেও ধর্মঘট শুরু হবে বলে হুঁশিয়ার করেন দুলাল।
এদিকে, অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতিতে রোববার ভোর থেকে খুলনা বিভাগের সব ফিলিং স্টেশনে সব ধরনের জ্বালানি তেল বিক্রি বন্ধ রেখেছে মালিকপক্ষ।
পাশাপাশি পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা তেল ডিপোর শ্রমিকরা তেল উত্তোলন, বিপণন ও সরবরাহ বন্ধ রাখায় খুলনা বিভাগের ১৫ জেলায় তেল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।
জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখ মুরাদ হোসেন বলেন, “কর্মবিরতির কারণে খুলনার পদ্মা, মেঘনা, যমুনা তেল ডিপো থেকে তেল উত্তোলন ও বিপণন বন্ধ রয়েছে। খুলনা বিভাগের ১০ জেলাসহ বৃহত্তর ফরিদপুরের পাঁচ জেলায় ট্যাংক লরি যাচ্ছে না । পাম্পে তেল বিক্রিও বন্ধ রয়েছে।”
এদিকে ধর্মঘটের ফলে অতিরিক্ত ট্রাক-লরির চাপে ফিলিং স্টেশন, ট্রাক-লরি স্ট্যান্ডে জায়গা হচ্ছে না। বহু ট্রাক ও লরিকে সড়কের দুই পাশে বিভিন্ন জায়গায় দাঁড় করিয়ে রাখতে দেখা গেছে।
বাংলাদেশ পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের খুলনা বিভাগীয় কমিটির সভাপতি সাজ্জাদুল করিম কাবুল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের বেনাপোল প্রতিনিধিকে বলেন, “যানবাহন চলাচল একেবারে যাতে বন্ধ না হয় সে কারণে দেশব্যাপী ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়া হয়নি। তবে সরকারের পক্ষ থেকে সাড়া না পেলে দেশব্যাপী ধর্মঘট পালনের বিষয়টি চিন্তা ভাবনায় আছে।”

শেয়ার