আ’লীগে দুর্নীতিবাজদের কোনো স্থান নেই: এসএম কামাল

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেন বলেছেন, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ ও আওয়ামী লীগ এক ও অভিন্ন। যার একটিকে বাদ দিয়ে অন্যটি ভাবা যায় না। বঙ্গবন্ধু শুধু বাঙালী জাতিকে স্বপ্ন দেখাননি, তিনি বাঙালী জাতিকে উপহার দিয়েছেন একটি স্বাধীন সার্বভৌমত্ব দেশ। বঙ্গবন্ধুর পর বাংলাদেশের অহংকার তারই যোগ্য উত্তরসূরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা দেশের অহংকার ও মডেল। বিশ্ব নেতারা শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে ভূয়সী প্রশংসা করে তাকে অনুসরণ করছে। বিশ্বের অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা শেখ হাসিনাকে নিয়ে গবেষণা করছেন। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বর্তমান সরকার উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। এখন আর দেশের মানুষ না খেয়ে থাকে না। বিদ্যুৎ ও সারের জন্য জীবন দিতে হয় না। দুর্নীতি দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির জন্য প্রধান অন্তরায় উল্লেখ করে কেন্দ্রীয় এ আওয়ামী লীগনেতা বলেন, প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছে। ফলে এখন থেকে আওয়ামী লীগে টেন্ডার, দুর্নীতি ও চাঁদাবাজদের কোন স্থান নেই।
রোববার বিকালে পাইকগাছা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। দেড়যুগ পর অনুষ্ঠিত সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে সভাপতি পদে বঙ্গবন্ধুর একান্ত সহচর ও সাবেক এমএনএ শহীদ এমএ গফুরের জ্যৈষ্ঠ পুত্র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহবায়ক আনোয়ার ইকবাল মন্টু, সাধারণ সম্পাদক পদে শহীদ মাহাতাব উদ্দীন মনি মিয়ার ছেলে জেলা পরিষদ সদস্য শেখ কামরুল হাসান টিপু, সহ-সভাপতি পদে পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সমীরণ সাধু ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহবায়ক আনন্দ মোহন বিশ্বাসের নাম ঘোষণা করেন। একই সাথে বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদানকারী নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত লস্কর ইউপি চেয়ারম্যান কেএম আরিফুজ্জামান তুহিনকে দল থেকে বহিষ্কারের ঘোষণা দেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে সম্মেলন উদ্বোধন করেন, জেলা সভাপতি শেখ হারুনুর রশিদ। সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান রশীদুজ্জামান ও প্রভাষক ময়নুল ইসলামের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাডঃ শেখ মোঃ নূরুল হক, এ্যাডঃ সোহরাব আলী সানা, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ সুজিত অধিকারী, জেলা আওয়ামী লীগনেতা সরফুদ্দীন বিশ্বাস বাচ্চু, কামরুজ্জামান জামাল, ডাঃ শেখ মোহাঃ শহীদ উল্লাহ, ইঞ্জিনিয়ার মাহাবুব হোসেন, অধ্যাপক আশরাফুজ্জামান বাবুল, মালিক সরোয়ার, অসিত বরণ বিশ্বাস, ইঞ্জিনিয়ার প্রেমকুমার মন্ডল, এমএ রিয়াজ কচি, জয়ন্তী রানী সরদার, ফারহানা হালিম, শোভা রানী হালদার, হোসনেয়ারা চম্পা, মানিকুজ্জামান অশোক, উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম শফিকুল ইসলাম, সাবেক চেয়ারম্যান জিএম মহসিন রেজা, পাপিয়া সরোয়ার, বিজয় কুমার সরদার, সাবিনা ইয়াসমিন, খাদিজা আক্তার, নাহার আক্তার, ইমরান হোসেন ইমু, আব্দুর রাজ্জাক মলঙ্গী, আলহাজ্ব শেখ মনিরুল ইসলাম, পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দীন ফিরোজ বুলু ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লিপিকা ঢালী। সম্মেলনে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান বাবুর মায়ের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়।

শেয়ার