যশোরে বন্ধন হসপিটাল ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে বন্ধন হসপিটাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভুল চিকিৎসায় গৃহবধূ ময়না খাতুনের মৃত্যু ঘটনায় ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। রোববার যশোরের সিভিল সার্জন ডাক্তার দিলীপ কুমার রায়ের নির্দেশে এ কমিটি গঠিত হয়েছে।
তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন, আহবায়ক ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাক্তার ফতেহ আলী হাসান, সদস্য সচিব ডাক্তার ইমদাদুল হক রাজু ও সদস্য ডাক্তার রেবেকা সুলতানা দীপা।
অপরদিকে, ময়না খাতুনের মৃত্যুর ঘটনার মামলায় আটক ডাক্তার ও ম্যানেজারকে এদিনই জামিন দিয়েছেন আদালত। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গৌতম মল্লিক এ জামিন মঞ্জুর করেন।
সিভিল সার্জন কার্যালয়ের একটি সূত্র মতে, গত ১৪ নভেম্বর সন্ধ্যায় শহরের পালবাড়ির গাজিরঘাট এলাকার ইসমাইল হোসেন হীরার স্ত্রী প্রসূতি ময়না খাতুন জেল রোড়ের বন্ধন হসপিটাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভর্তি হন। ডাক্তার নতুন করে কোনও পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই রাত সাড়ে ৯টার দিকে রোগী বা তাদের স্বজনদের কোন বন্ড সই না নিয়ে অস্ত্রোপচার করে। ডাক্তার বেরিয়ে চলে যাওয়ার ২০-২৫ মিনিট পরেই খিঁচুনি ওঠে এবং তিনি মারা যান। এঘটনায় পুলিশ ওই হসপিটালের ডাক্তার পরিতোষ কুমার কুন্ডু এবং ম্যানেজার আকরামুজ্জামানকে আটক করে। এঘটনায় নিহতের স্বামী শহরের পুলিশ লাইন টালিখোলা শাহ আলম জনি বাদী হয়ে আটক দুইজনসহ নার্স সুরাইয়া খাতুনকে পলাতক দেখিয়ে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। আটক দুইজনকে রোববার আদালত জামিন দিয়েছেন।
পাশাপাশি ময়না খাতুনের মৃত্যুর ঘটনায় সিভিল সার্জনের কার্যালয় থেকে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটি আজ সোমবার থেকে আগামী ৩ কার্য দিবসের মধ্যে সিভিল সার্জন কার্যালয়ে প্রতিবেদন দাখিল করবেন।

শেয়ার