একীভূত হলো যবিপ্রবি স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও শ্যামনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয় (যবিপ্রবি) স্কুল অ্যান্ড কলেজের সঙ্গে একীভূত হলো বিশ^বিদ্যালয় ক্যাম্পাস সংলগ্ন শ্যামনগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়। আগামী শিক্ষাবর্ষে শিশু শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত সীমিত সংখ্যক শিক্ষার্থী ভর্তির মাধ্যমে একীভূত এ প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরু হবে। দুই প্রতিষ্ঠান একীভূত হওয়ায় স্কুল অ্যান্ড কলেজের ম্যানেজিং কমিটিতেও পরিবর্তন আনা হয়। নতুন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হয়েছেন যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন। নতুন কমিটির প্রথম সভা গত ১৪ নভেম্বর বৃহস্পতিবার যবিপ্রবির প্রশাসনিক ভবনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় যবিপ্রবি স্কুল অ্যান্ড কলেজের পক্ষ যবিপ্রবি উপাচার্যকে ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। একইসঙ্গে দুই প্রতিষ্ঠানের একীভূত করার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক-২) জাবেদ আহমেদ ও যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোহাম্মদ আবদুল আলীমকে বিশেষ ধন্যবাদ জানানো হয়। যবিপ্রবি উপাচার্য আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় ২০২০ শিক্ষাবর্ষে শিশু শ্রেণি হতে নবম শ্রেণি পর্যন্ত সীমিত সংখ্যক শিক্ষার্থী ভর্তি, শিক্ষার্থী ডায়েরি, মনোগ্রাম, ব্যাজ, নেমপ্লেট, স্কুল ড্রেস, শিক্ষাক্রম ও সিলেবাস প্রণয়ন, অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডার তৈরি, বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা ও বাজেট প্রণয়ন, স্কুল ভবনের নকশা প্রদর্শনের ব্যবস্থা, আধুনিক ও মানসম্মত শিক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষা সরঞ্জাম ও শিক্ষা উপকরণ ক্রয়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা আয়োজনসহ বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সচিব ড. মেহেদী হাসান, অভিভাবক সদস্য ড. নাজমুল হাসান, কোহিনুর আক্তার, আশফাকুর রহমান, শিক্ষক প্রতিনিধি আবুল কালাম আজাদ, নাজমুন নাহার প্রমুখ।

শেয়ার