গাজায় ইসরায়েলি হামলায় ইসলামিক জিহাদের শীর্ষ নেতা নিহত

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ফিলিস্তিনের গাজা ভূখ-ে ইসরায়েলের হামলায় ইরান সমর্থিত ফিলিস্তিনি গোষ্ঠী ইসলামিক জিহাদের শীর্ষ এক কমান্ডার নিহত হয়েছেন।
ইসলামিক জিহাদের এই কমান্ডারকে লক্ষ্য করেই গাজায় হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল, যাকে ‘বিরল’ ঘটনা বলে উল্লেখ করেছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।
নিহত কমান্ডার বাহা আবু আল-আত্তা সীমান্তের অপর পাশে ইসরায়েলি ভূখ-ে ধারাবাহিক হামলার জন্য দায়ী এবং তিনি আরও হামলার পরিকল্পনা করছিলেন বলে দাবি ইসরায়েলের।
আল-আত্তা তার নিজ বাড়িতেই নিহত হন। হামলায় আরও অন্তত একজন, এক নারী নিহত এবং আরও দুই জন আহত হয়েছেন বলে গাজার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।
মঙ্গলবার ভোররাতে গাজা নগরীর শেজাইয়া এলাকায় আত্তার বাড়িতে হামলা হয়। ইসরায়েলি বাহিনীর ছোড়া বোমা বাড়িটির ছাদ ফুঁড়ে ভিতরে ঢুকে বিস্ফোরণ ঘটায়।
এর কিছুক্ষণ পর ফিলিস্তিনি যোদ্ধারা ইসরায়েলে এক পশলা রকেট হামলা চালায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে ইসরায়েলের দিক থেকে হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতির কোনো খবর পাওয়া যায়নি।
ইসরায়েলি পুলিশ জানিয়েছে, পূর্ব সতর্কতা হিসেবে তারা গাজা প্রান্তের কিছু সড়ক বন্ধ করে দিয়েছিল।
প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু অনুমতি পাওয়ার পর আল-আত্তার বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হয় বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী। সম্প্রতি ইসরায়েলে চালানো রকেট, ড্রোন ও স্নাইপার হামলার জন্য আল-আত্তাকে দায়ী করে সে ইসরায়েলে অনুপ্রবেশের উদ্যোগ নিয়েছিল বলে বিবৃতিতে দাবি করেছে তারা।
বিবৃতিতে বলা হয়, “গাজা ভূখ-ে ইসলামিক জিহাদের অধিকাংশ কর্মকা-ের জন্য আবু আল-আত্তা দায়ী।”

নিহত আল-আত্তাকে ‘টিক টিক করতে থাকা বোমা’ হিসেবে অভিহিত করে সে ‘বিভিন্ন পন্থায় ইসরায়েলে সন্ত্রাসী হামলা চালানোর’ পরিকল্পনা করেছিল বলে বিবৃতিতে অভিযোগ করেছে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী।
এক বিবৃতিতে ইসলামিক জিহাদ আল-আত্তার মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করে প্রতিশোধ নেওয়ার প্রত্যয় জানিয়েছে। গাজার শাসক দল হামাসের ‘ইসরায়েল ধ্বংসের’ আদর্শ ধারণ করলেও ইসলামিক জিহাদ ইসরায়েলের সঙ্গে যুদ্ধবিরতি বজায় রাখার মিশরীয় উদ্যোগকে সমর্থন করে না। ২০১৪ সালের যুদ্ধের পর থেকে ইসরায়েলের সঙ্গে যুদ্ধবিরতি বজায় রাখার চেষ্টা করে যাওয়া হামাসের জন্য ইসলামিক জিহাদের নেতা আল-আত্তা নতুন চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন।

শেয়ার