যশোরে স্ত্রী হত্যায় আলোচিত আইনজীবী আমিরকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে আটক আলোচিত আইনজীবী আমির হোসেনকে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী সালেহা খাতুন সোনিয়া হত্যা মামলায় জেলগেটে তিনদিন জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গৌতম মল্লিক এ আদেশ দেন। আসামি আমির হোসেন সদর উপজেলার ডহেরপাড়া গ্রামের মৃত ছবির মুন্সি ওরফে সাব্বির হোসেন মিয়ার ছেলে।
জানা গেছে, মাস ছয়েক আগে অ্যাডভোকেট আমির হোসেন লেবুতলা গ্রামের পূর্বপাড়ার সিরাজুল ইসলামের মেয়ে সালেহা খাতুন সোনিয়াকে বিয়ে করেন। সালেহা খাতুন দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। বিয়ের সময় স্বর্ণালংকারসহ বিভিন্ন ধরনের সাংসারিক মালামাল দেন তার বাবা। কিন্তু আমির হোসেন স্ত্রী সালেহার কাছে তিন লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকার করায় সালেহার উপর অমানুষিক নির্যাতন শুরু করেন তিনি। নির্যাতন সহ্য করতে না পেয়ে কয়েকদিন আগে সালেহা তার মা নূরজাহানকে বিষয়টি জানান। এরপর সালেহার মা ও বাবা আমির হোসেনকে দাওয়াত করে বাড়িতে নিয়ে যৌতুক ছাড়া সালেহাকে নিয়ে সংসার করার অনুরোধ করেন। এতে আরো ক্ষীপ্ত হন আমির হোসেন। এর জের ধরে গত শনিবার সন্ধ্যায় সালেহাকে মারপিটের পর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেন আমির হোসেন। এরপর তার লাশটি ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার চালান। খবর পেয়ে সালেহার বাবা বাড়ির লোকজন আমির হোসেনের বাড়িতে যান। সেখানে মেয়ের লাশ দেখে পুলিশে সংবাদ দেন। পরে সালেহার বাবা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। সেই মামলায় আমির হোসেনকে আটকের পর সাতদিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। শুনানী শেষে বিচারক তাকে জেলগেটে তিনদিন জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দিয়েছেন।

শেয়ার