রাজকোটের উইকেট নাগপুরেও চায় ভারত

সমাজের কথা ডেস্ক॥ প্রথম ম্যাচের উইকেট ভারতের জন্য ছিল যেন ‘বিভীষণ।’ ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা আগ্রাসী, পছন্দ করেন শট খেলতে। দিল্লির মন্থর উইকেট তাদের ভালো লাগবে কেন! সেই ম্যাচে ঝিমিয়ে থাকা ব্যাটিং লাইন আপ রাজকোটে জ্বলে উঠেছে পছন্দের উইকেট পেয়ে। বাংলাদেশের বোলারদের উড়িয়ে ভারত সমতা ফিরিয়েছে সিরিজে। ম্যাচ শেষে দলের অফ স্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দর জানালেন, নাগপুরে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচেও রাজকোটের মতো উইকেট প্রত্যাশা করছেন তারা।
সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার ১৫৩ রান তাড়ায় ৮ উইকেটে জিতেছে ভারত। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সুন্দর জানান, টসও গুরুত্বপূর্ণ ছিল এই ম্যাচে।
“টসের ব্যাপারে আমরা ভাগ্যবান ছিলাম। অবশ্যই আমরা প্রথমে বোলিং করতে চেয়েছিলাম। ভেবেছিলাম, ওদের ১৬০ রানের আশেপাশে থামিয়ে রাখতে পারলে সেটা হবে আমাদের জন্য ভালো কিছু।”
দুই ওপেনার লিটন দাস ও মোহাম্মদ নাঈম শেখের ব্যাটে উড়ন্ত সূচনা পেয়েছিল বাংলাদেশ। পাওয়ার প্লেতে ৬ ওভারে বিনা উইকেটে করেছিল ৫৪ রান। সুন্দর জানান, তখনও স্বাগতিকদের ১৬০ রানের আশেপাশে থামানোর ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন তারা।
“ওরা খুব ভালো ব্যাটিং করেছে। আমরা ভেবেছিলাম, এই ম্যাচে স্পিনারদের ভূমিকা হবে গুরুত্বপূর্ণ। বলে গতি না রাখা ছিল খুব গুরুত্বপূর্ণ। আর মাঝের ওভারগুলোতে আমরা আমরা খুব ভালো কাজ করেছি।”
রান তাড়ায় রোহিত শর্মা ৪৩ বলে ছয়টি করে ছক্কা ও চারে খেলেন ৮৫ রানের বিস্ফোরক ইনিংস। ভারত জেতে ২৬ বল বাকি থাকতে। সতীর্থদের কাছ থেকে এমন ব্যাটিংই প্রত্যাশিত সুন্দরের।
“যদি আমাদের এই ব্যাটিং লাইনআপের দিকে তাকান, সবাই দারুণ প্রতিভাবান, প্রথম বল থেকে ওরা আগ্রাসী ক্রিকেট খেলতে পছন্দ করে। দিল্লিতে শুরু থেকেই মাঝ ব্যাটে খেলা সহজ ছিল না। কিন্তু এই ধরণের উইকেটে আশা করা যায়, ভারত শুরু থেকে চড়াও হবে।”
দিল্লিতে বাংলাদেশের কাছে হারকে অঘটন হিসেবে দেখেন না সুন্দর। তবে এমন হারের পুনরাবৃত্তি এড়াতে নিজেদের শক্তি-সামর্থ্যের সঙ্গে মানানসই উইকেট চাইলেন ভারতীয় অফ স্পিনার।
“বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ওরা যেমন উইকেটে খেলে, দিল্লিতে তেমন উইকেট পেয়েছিল। ওই উইকেট ওদের জন্য বেশি মানানসই ছিল। ওরা সেদিন আমাদের চেয়ে ভালো খেলেছে।”
“আমরা একটা ম্যাচ হেরেছি, কিন্তু ম্যাচে লড়াই হয়েছিল তীব্র। কিছু ব্যাপার এদিক-সেদিক হলেই আমরা ম্যাচটা আমাদের দিকে যেতে পারতো। আজ আমরা সহজেই জিতেছি। আশা করছি, নাগপুরে এই রকম উইকেট পাব।”

শেয়ার