এরদোয়ানের হুমকি, ইউরোপে পাঠাতে চান শরণার্থীদের

সমাজের কথা ডেস্ক॥ তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান আবার হুমকি দিয়ে বলেছেন, যদি পর্যাপ্ত সাহায্য না দেওয়া হয় তাহলে তিনি তুরস্কে আশ্রয় নেওয়া শরণার্থীদের জন্য ইউরোপ সীমান্ত খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করবেন। বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) হাঙ্গেরির কট্টোর জাতীয়তাবাদী প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর ওরবানের সাথে দেখা করে তিনি এসব কথা বলেন। খবর হিন্দুস্থান টাইমস।
এরদোয়ানের এমন কথার প্রেক্ষিতে হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর ওরবান বলেছেন, তুরস্কের প্রস্তাবিত মুক্তাঞ্চল সৃষ্টিতে হাঙ্গেরি সর্বোচ্চ সহযোগিতা করতে প্রস্তুত আছে।
এর আগেও, এরদোয়ান বলেছিলেন তার কথা মতো সিরিয়ার অভ্যন্তরে মুক্তাঞ্চল তৈরি করতে না দেওয়া হলে, তিনি তুরস্কে আশ্রয় নেওয়া সিরিয়ান শরণার্থীদের সমগ্র ইউরোপে ছড়িয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করবেন।
এদিকে, এরদোয়ানের চলমান সফরের মধ্যেই হাজার হাজার আন্দোলনকারী বুদাপেস্টের রাস্তায় নেমে এসেছেন। তারা এরদোয়াকে ‘গণহত্যার একনায়ক’ সম্বোধন করে প্ল্যাকার্ড দেখিয়েছেন।
প্রসঙ্গত, তুরস্ক-সিরিয়া সীমান্ত দিয়ে মাসখানেক আগে অবৈধ সামরিক অনুপ্রবেশ শুরু করে তুরস্ক। তাদের লক্ষ্য ছিল তুরস্কে আশ্রয় নেওয়া ৩০ লাখ ৬০ হাজার সিরিয়ান শরণার্থীদের জন্য সিরিয়া সীমান্তের অভ্যন্তরে একটি মুক্তাঞ্চল তৈরি করা। যে মুক্তাঞ্চল ব্যবহার করে শরণার্থীরা তাদের নিজের দেশে ফিরতে পারবেন। কিন্তু কার্যত সেই সামরিক অভিযান শেষ পর্যন্ত তুরস্কের কুর্দিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে রূপ নিয়েছে।

শেয়ার