চুয়াডাঙ্গায় ইটভাটার মাটি চাপায় শিশুর মৃত্যু

সমাজের কথা ডেস্ক॥ চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে ইটভাটার ধসে পড়া মাটির নিচে চাপা পড়ে এক শিশু নিহত হয়েছে। সোমবার দুপুরে উপজেলার আশতলাপাড়ার এএনজেএম ব্রিকসের একটি ইটভাটার কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানায়।
নিহত সাত বছর বয়সী শিশু জিহাদ আলী ওই উপজেলার বাঁকা গ্রামের দিনমজুর তরিকুল ইসলামের ছেলে।
দুর্ঘটনার বিবরণ দিতে গিয়ে জীবননগর থানার ওসি শেখ গনি মিয়া জানান, বাঁকা গ্রামের আশতালা পাড়ার ঘনবসতিপূর্ণ এলাকার কাছে এএনজেএম ব্রিকসের ওই ইটভাটার অবস্থান। এর দুদিকে রাস্তা এবং চারপাশ খোলা।
“দুপুরে গ্রামে আশতালা পাড়ার এএনজেএম ব্রিকসের একটি ইটভাটার অদূরে শিশু জিহাদ ও তার বন্ধুরা খেলছিল। এ সময় হঠাৎ পাশের মাটির স্তুপ ধ্বসে পড়লে ওই মাটির নিচে চাপা পড়ে জিহাদ।”
এতে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে তার স্বজনসহ স্থানীয়রা জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জিহাদকে মৃত ঘোষণা করে।
এক প্রশ্নের জবাবে ওসি বলেন, নিহতের পরিবার ইটভাটা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোনো ক্ষতিপূরণ পেয়েছে কি না জানি না।
তবে ওই ইটভাটার মালিক আতিয়ার রহমান বলেন, “লাশও দাফন হয়ে গেছে। আমাদের মধ্যে আর কোনো সমস্যা নেই। মিটমাট হয়ে গেছে।”

তবে জনবসতির কাছে ইটভাটা নির্মাণ নিয়ে জানতে চাইলে চুয়াডাঙ্গা জেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোতালেব জানান, ইটভাটা তৈরির অনেক নিয়মের মধ্যে একটি নিয়ম হল- জনবসতি এলাকায় ইটভাটার অনুমোদন দেওয়া হবে না।
পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়না তদন্ত ছাড়াই নিহত শিশু জিহাদের লাশ হস্তান্তর করে পুলিশ।

শেয়ার