পাকিস্তানের পাঞ্জাবে ট্রেনে বিস্ফোরণে নিহত ৭৪

সমাজের কথা ডেস্ক॥ পাকিস্তানের পাঞ্জাবে ট্রেনের ভেতর গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে অন্তত ৭৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে আরো ৪০ জন।
বৃহস্পতিবার সকালে পাঞ্জাব প্রদেশের দক্ষিণে রহিম ইয়ার খান জেলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে।
পাকিস্তানের রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমদ বলেছেন, যাত্রীরা সকালের নাস্তা তৈরির সময় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আগুন ধরে যায় এবং তিনটি বগিতে তা ছড়িয়ে পড়ে।
করাচি থেকে রাওয়ালপিন্ডি যাওয়ার পথে লিয়াকতপুর শহরের কাছে তেজগাম নামে ট্রেনটিতে এ বিস্ফোরণ ঘটে। এতে ট্রেনের তিনটি বগি পুড়ে যায়। মানুষজন জ্বলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিতে গিয়ে মারা গেছে। মৃতের সংখ্যা আরো বাড়ার আশঙ্কা করছেন কর্মকর্তারা।
রেলমন্ত্রী ডন পত্রিকাকে বলেন, হতাহতদের মধ্যে তাবলিগ জামাতের লোকরা ছিলেন, যারা রাইওয়ান্দ যাচ্ছিলেন। তারাই সকালের নাস্তার তৈরির সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়।
হতাহতদের মধ্যে নারী, শিশুও আছে। তবে কারোরই পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
রেল কর্মকর্তা নাবিলা আসলাম বলেন, ট্রেনে গ্যাস সিলিন্ডার নিয়ে উঠা নিষেধ আছে। যাত্রীরা নিশ্চয় সিলিন্ডার কাপড়ের ভেতরে লুকিয়ে নিয়ে ট্রেনে উঠেছিল।
রান্নার দুটো স্টোভ বিস্ফোরিত হয়েছে। সেখানে রান্নার তেল থাকার কারণে আগুন আরো দ্রুত ছড়িয়েছে। তবে ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া কয়েকটি খবরে আগুন লাগার কারণ হিসাবে বৈদ্যুতিক সমস্যার কথাও বলা হয়েছে।
আগুন থেকে বেঁচে যাওয়া কয়েকজন বলেছেন, তাদের ধারণা বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগেছে। আগুনের কারণে রেল চলাচল কিছু সময় বন্ধ থাকার পর তা আবার চালু হয়েছে।
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এ মর্মান্তিক ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং ঘটনাটি অবিলম্বে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। পাকিস্তানে এক দশকের মধ্যে এটিই সবচেয়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা।

শেয়ার