যশোরে মুক্তিপণ দাবিতে সাতক্ষীরার যুবককে মারপিট, চারজন আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ মুক্তিপণ দাবিতে সাতক্ষীরার যুবক ইমরান হোসেনকে যশোরে মারপিট ও টাকা ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনায় আটক চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বুধবার বিকেলে শহরের পালবাড়ি এলাকায় এ ঘটনার পর ওইদিন রাতে ভুক্তভোগী ইমরান হোসেন বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। ভুক্তভোগী ইমরান হোসেন সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া গ্রামের বিশ্বাসপাড়ার নূর মোহাম্মদ বিশ্বাসের ছেলে।
আসামিরা হলো, শহরের পুরাতন কসবা ঢাকা রোড এলাকার আবুল কালাম আজাদের ছেলে আরিফুল ইসলাম টফি, ধর্মতলা মোড়ের ইউসুফ আলীর ছেলে নাজমুল ইসলাম শাকিল, আরবপুর গোড়াপাড়ার মৃত আতিয়ার রহমানের ছেলে জাহিদুল ইসলাম এবং জালাল উদ্দিনের ছেলে মেহেদী হাসান।
বাদী মামলায় উল্লেখ করেছেন, বাদী ইমরান হোসেন বিমান দেখার জন্য বুধবার দুপুরের দিকে যশোর বিমান বন্দরে আসেন। বিমান বন্দর থেকে বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশ্যে একটি রিক্সায় চড়ে যশোর শহরের পালবাড়ি ভাস্কর্যের মোড়ে আসেন। ওই মোড়ের শাহ সুইটসের গলির কাছে আসা মাত্র আটক চারজনে তাকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গলির মধ্যে নিয়ে যায়। এরপর ইমরানের কাছে ওই যুবকরা ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। মুক্তিপণ দিতে অস্বীকার করায় তাকে এলোপাতাড়ি মারপিট করে। এরপর তার কাছে থাকা ব্যবহৃত মোবাইল ফোনসেট কেড়ে নিয়ে মুক্তিপণের টাকার জন্য ইমরানের বাড়িতে ফোন করে। এক পর্যায় ইমরানের পকেটে থাকা ৬৫০ টাকা তারা নিয়ে নেয়। এরই মধ্যে স্থানীয়দের মাধ্যমে বিষয়টি কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়। থানার এসআই আমিরুজ্জামানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সেখানে গিয়ে ইমরানকে উদ্ধারসহ ওই চারজনকে আটক করেন। থানায় এনে তাদের জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে আটক ওই চার যুবক ইরানকে মুক্তিপণের দাবিতে আটক ও মারপিটের কথা স্বীকার করে। এঘটনায় ওইদিন রাতেই ইমরান হোসেন বাদী হয়ে মামলা করেন। তদন্ত কর্মকর্তা এসআই জিয়াউর রহমান বৃহস্পতিবার আটক চারজনকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

শেয়ার