যশোরের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বটবৃক্ষ শাহিদুজ্জামানের চির বিদায়

 আজ শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন॥ উদীচীর চার দিনের শোক কর্মসূচি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও উদীচী জেলা শাখার সভাপতি ডিএম শাহিদুজ্জামান (৫৬) মারা গেছেন। দূরারোগ্য ক্যান্সারের কাছে হার মেনে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানী ঢাকার বনশ্রীতে ভাগ্নের বাসায় তিনি মারা যান। ২০১৭ সালের মে মাসের দিকে তার জিহ্বায় ক্যান্সার ধরে পড়ে। এরপর তিনি বাংলাদেশ ও ভারতে ক্যান্সারের চিকিৎসা গ্রহণ করেন।
ডিএম শাহিদুজ্জামান গত ১৩ অক্টোবর ঢাকায় তার ভাগ্নে কৌশিকের বাসায় গিয়েছিলেন মেডিকেল চেকআপ করাতে। ১৬ অক্টোবর রাতে তার শরীর খুব বেশি খারাপ হয়। সকাল ৮টার দিকে তিনি মারা যান।
ডিএম শাহিদুজ্জামান যশোর শহরের চুড়িপট্টি এলাকার ডি এম আমান ও মাহমুদা বেগম দম্পতির সন্তান। মৃত্যুকালে তিনি অসংখ্য গুণাগ্রাহী রেখে গেছেন। ডিএম শাহিদুজ্জামান শহীদের অকাল মৃত্যুতে উদীচী যশোরের পক্ষ থেকে চার দিনের শোক ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার বেলা ১১টায় তার মরদেহ উদীচী যশোর কার্যালয়ে এনে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। এরপর বাদ জুম্মা যশোর কেন্দ্রীয় ঈদগাহে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন উদীচী যশোর জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান খান বিপ্লব।
জানা গেছে, প্রায় ৪৫ বছর আগে ডিএম শাহিদুজ্জামান যশোরের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে প্রবেশ করেন। উনিশশো চুয়াত্তর সালে ‘শুভ বিবাহ’ নাটকের মাধ্যমে যখন তার সাংস্কৃতিক অঙ্গনে প্রবেশ ঘটে তখন তিনি চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। চুড়িপট্টি এলাকার ‘ডায়মন্ড ক্লাব’ তখন যশোরের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে উল্লেখযোগ্য নাম। সেই থেকেই তিনি নিয়মিত নাটক করতেন ডায়মন্ড ক্লাবে। প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক কালিদাস, অভিনেতা দীন মহম্মদ, নয়ন চৌধুরী, নীল রতন ঘোষ, মায়া ঘোষ, মিনু রহমান, রানু দাশ, শোভা ঘোষের মত বিখ্যাত অভিনেতা-অভিনেত্রীদের সাথে ওই ছোট বয়সেই তার অভিনয় করার সুযোগ হয়েছিল। বছরে একাধিক নাটক মঞ্চস্থ হতো ডায়মন্ড ক্লাবে। এর মধ্যে শুধু মাত্র শিশুদের নিয়ে অন্তত দুটি নাটক করা হতো।
এরপর ১৯৮২ সালে ডি এম শাহিদুজ্জামান নাটকের প্রশিক্ষণ নিতে উদীচীতে আসেন। প্রথমে শান্তিরঞ্জন সাহা, মুনির হোসেন খান, দিলীপ সাহা ও পরবর্তীকালে প্রথ্যাত নাট্য বিশেষজ্ঞ কামাল উদ্দীন নীলু এবং আব্দুল আফ্ফান ভিক্টরের কাছে নাটকের অভিনয়সহ বিভিন্ন প্রায়োগিক দিকে তামিল নেন তিনি। নাটক করতে করতেই উদীচীতে বিভিন্ন কাজের সাথে যুক্ত হন তিনি। সেই সময় থেকেই তবলা বাজানো শেখা শুরু করেন তিনি। পাশাপাশি সংগঠনের সব ধরণের কাজের সাথে নিজেকে যুক্ত করেন। পর্যায়ক্রমে উদীচী যশোরের নাট্য সম্পাদক, সহ-সাধারণ সম্পাদক, সাত মেয়াদে প্রায় পনেরো বছর (১৯৯৫-২০০৩,২০০৭-২০১৪) সাধারণ সম্পাদক, (২০০৫-২০০৭) সহ-সভাপতি, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, বর্তমানে (২০১৪-২০১৯) উদীচী যশোর জেলা সংসদ, উদীচী পরিচালিত অক্ষর শিশু শিক্ষালয় ও যশোর সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে উদীচীর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, জাতীয় পরিষদ সদস্য, বিগত ১৬ বছর ধরে উদীচীর কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সদস্য ও যশোর জেলার সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ সঙ্গীত সংগঠন সমন্বয় পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও যশোর বিভাগীয় অঞ্চলের সদস্য সচিব ছিলেন তিনি। এছাড়া জেলা শিল্পকলা একাডেমীর প্রথম নির্বাচিত কমিটিতে সাধারণ সদস্যদের সর্বাধিক ভোটে কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এবং বর্তমানে জেলা প্রশাসক মনোনিত কার্যকরী পরিষদের সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। একসময় জাতীয় রবীন্দ্র সঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ যশোর জেলার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।
এবছর উদীচী যশোর জেলা সংসদের বর্ষবরণ উৎসব ১৪২৬ এ ডা. রবিউল নববর্ষ পদক প্রাপ্ত হন ডি এম শাহিদুজ্জামান। সম্প্রতি যশোর পৌরসভা পরিচালিত ‘ভৈরব সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান’ তাদের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে তাকে গুণীজন সম্মাননা এবং মুক্তেশ্বরী সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদ তাকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করে।
শাহিদুজ্জামানের অকাল প্রয়াণে শোক প্রকাশ করেছেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার, বিশিষ্ট কলামিস্ট ও মুক্তিযোদ্ধা আমিরুল ইসলাম রন্টু, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা সভাপতি ইকবাল কবির জাহিদ ও সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ভিটু। পৃথক বিবৃতিতে তারা গভীর শোক ও পরিবারের পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। নেতৃবৃন্দ বলেন, শহীদের অকাল মৃত্যুতে যশোরবাসী একজন অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক, সাংস্কৃতিক সংগঠককে হারালো।
গভীর শোক প্রকাশ করেছেন যশোর সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি একরাম-উদ-দ্দৌলা ও সাধারণ সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন। শোক প্রকাশ করেছে যশোর সাংবাদিক ইউনিয়ন (জেইউজে)। এক বিবৃতিতে যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের (জেইউজে) সভাপতি সাজেদ রহমান, সহ সভাপতি প্রণব দাস, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন, যুগ্ম সম্পাদক রেজাউল করিম রুবেল, কোষাধ্যক্ষ মারুফ কবীর এবং জেইউজে নির্বাহী সদস্য শফিক সায়ীদ ও জিয়াউল হক এই শোক প্রকাশ করেন। পৃথক বিবৃতিতে শোক প্রকাশ করেছেন বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন’র সহ সভাপতি মনোতোষ বসু, যুগ্ম মহাসচিব সাকিরুল কবীর রিটন, নির্বাহী সদস্য নূর ইমাম বাবুল ও গোপীনাথ দাস। একইসাথে নেতৃবৃন্দ মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। আরও শোক জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন জেলা সভাপতি মনিরুজ্জামান মুনির ও সাধারণ সম্পাদক গালিব হাসান পিল্টু, যশোর জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (ডিএফএ) সভাপতি আসাদুজ্জামান মিঠু ও যুগ্ম সম্পাদক নুরুল আরিফিন।
শাহিদুজ্জামানের অকাল প্রয়াণে চাঁদের হাট যশোর পরিবার তার রূহের মাগফেরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপণ করেছে। বিবৃতিদাতারা হলেন, চাঁদের হাট যশোরের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম, সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা অশোক কুমার রায়, মুক্তিযোদ্ধা জাকির হোসেন, কবীর উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক এস এম আরিফ, যুগ্ম সম্পাদক তুরানী চৌধুরী ও কার্যনির্বাহী সদস্য ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল। শোক প্রকাশ করেছেন বিবর্তন যশোরের সভাপতি সানোয়ার আলম খান দুলু ও সাধারণ সম্পাদক আতিকুজ্জামান রনিসহ সংগঠনের সকল সদস্যবৃন্দ। শাহিদুজ্জামান এর অকাল প্রয়াণে সিপিবি যশোর জেলার সভাপতি এ্যাডভোকেট আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ইলাহ্দাদ খান গভীর শোক জ্ঞাপন করেছেন।
অন্যদিকে, শহিদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ’র কেন্দ্রীয় কার্যকরী সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম ও জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা অশোক রায়। শোক প্রকাশ করেছেন যশোর সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুল।
এদিকে শাহিদুজ্জামানের অকাল মৃত্যুতে মুক্তেশ্বরী সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদের পক্ষ থেকে গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানানো হয়েছে।
সংগঠনের পক্ষে বিবৃতি দাতারা হলেন- সভাপতি ডা. মোকাররম হোসেন, সহসভাপতি মমিনুর রহমান, সহসভাপতি রাশিদা আখতার লিলি, সাধারণ সম্পাদক গাজী শহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. অমল কান্তি সরকার, অর্থ সম্পাদক ডা. আহাদ আলী, সমাজকল্যাণ সম্পাদক ভাগীরথী রানী দত্ত, প্রচার ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক কওছার আলী, নাট্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মহব্বত আলী মন্টু, শিক্ষা ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান সরদার, শিশু ও মহিলা বিষয়ক সম্পাদক তানিয়া খাতুন, প্রচার সম্পাদক ডা. আমিরুল হক, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নাঈম রেজা।

শেয়ার