টাকা নিয়ে প্রতারণা মামলায় যশোরে আনন্দ দাসের বিরুদ্ধে চার্জশিট

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে প্রতারণা মামলায় আনন্দ দাস নামে একজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ। কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই জিয়াউর রহমান আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেন। আসামি আনন্দ দাস যশোর শহরের ষষ্ঠীতলাপাড়ার মির্জা নওরোজ আলী বাবুলের বাড়ির ভাড়াটিয়া এবং কেশবপুর উপজেলার মাগুরাডাঙ্গা গ্রামের মৃত শিবুপদ দাসের ছেলে।
জানা গেছে, আনন্দ দাস শহরের গুরুদাস বাবু লেনের একটি বাড়ি ভাড়া নিয়ে চন্দ্রবিন্দু নামে একটি প্রতিষ্ঠান খুলে ভোজ্য তেল ও আইসক্রিমের ডিলার শিপের ব্যবসা করতেন। ব্যবসার প্রয়োজনে তিনি বিভিন্ন সময়ে পরিচিত লোকজনের কাছ থেকে টাকা ধার নেন। তার পরিচিত গোপীনাথ দাসের কাছ থেকে ২০১৮ সালের ২০ জানুয়ারি তিন লাখ এবং ৩ মার্চ আরো দুই লাখ টাকা ধার হিসেবে নেন। এছাড়া তিনি শেখ মাহমুদের কাছ থেকে পাঁচ লাখ, ইকরামুলের কাছ থেকে এক লাখ টাকা, মোহিতুজ্জামান মিলনের কাছ থেকে তিন লাখ টাকা, এসএম সুলতানের কাছ থেকে তিন লাখ টাকা, কাজী জাকিরের কাছ থেকে তিন লাখ টাকা, মির্জা নওরোজ আলীর কাছ থেকে ১২ লাখ টাকা, রকিবুলের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা ধার নেন। এছাড়া তিনি আরো অনেকের কাছ থেকে মোট ৬৫ লাখ টাকা ধার নেন। ওই টাকা ফেরৎ চাইলে আনন্দ দাস না দিয়ে নানা টালবাহানা করতে থাকেন। গত ২১ জুলাই আনন্দ দাসের ভাড়া বাসায় গোপীনাথ দাস পাওনা টাকা ফেরৎ চাইলে না দিয়ে তাড়িয়ে দেন। টাকা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে ২৫ জুলাই প্রতারণার অভিযোগে গোপীনাথ দাস কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে আসামি আনন্দ দাসের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ পাওয়ায় আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা।

শেয়ার