আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবসে প্রধানমন্ত্রীর উপহার

সমাজের কথা ডেস্ক ॥ আন্তর্জাতিক প্রশমন দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাইকগাছা, মোরেলগঞ্জ ও শরণখোলাসহ বিভিন্ন স্থানে বহুমুখী ঘুর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র এবং দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহের উদ্বোধন করেছেন। রোববার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এসব প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়। এবারের প্রতিপাদ্য ছিল ‘নিয়ম মেনে অবকাঠামো গড়ি, জীবন ও সম্পদের ঝুঁকি হ্রাস করি’। এদিকে প্রশমন দিবসটিতে র‌্যালি ও আলোচনা সভাসহ বিস্তারিত কর্মসূচি পালনের খবর দিয়েছে প্রতিনিধিরা:
পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি জানান, রোববার সকালে হরিঢালী-কপিলমুনি মহিলা কলেজ বহুমুখী ঘুর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হয়। সারাদেশের ন্যায় ডিজিটাল পদ্ধতিতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় কর্তৃক উপজেলায় নির্মিত ২টি বহুমুখী ঘুর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র ও ২৩টি দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত একটি র‌্যালি প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুলিয়া সুকায়নার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইমরুল কায়েস। বক্তব্য রাখেন, ইউপি চেয়ারম্যান কওছার আলী জোয়াদ্দার, আবু জাফর সিদ্দিকী রাজু, অধ্যক্ষ শেখ মেজবাহ উদ্দীন, উপাধ্যক্ষ তোরাব আলী, পাইকগাছা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি আব্দুল আজিজ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী সাইফুর রহমান, মীর লিয়াকত আলী, দুলাল চন্দ্র ঘোষ, প্রভাষক জীবেশ রায়, আসলাম হোসেন, ইউপি সদস্য কুমারেশ দে, রাজিব গোলদার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী আলফাতারা কাজল ও সাংবাদিক তপন পাল। আলোচনা সভা শেষে রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, মোরেলগঞ্জে বহুমুখী ঘুর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রের উদ্বোধন রোববার বেলা ১১টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। সেলিমাবাদ ডিগ্রী কলেজ চত্বরে নির্মিত আশ্রয় কেন্দ্রটির উদ্বোধন ঘোষণার পর তার পক্ষে স্থানীয় এমপি ডা. মোজাম্মেল হোসেন ফলক উন্মোচনসহ দরজা খুলে দেন।
উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. শাহ্-ই-আলম বাচ্চু, নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান, ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মলে হক, ফাহিমা ছাবুল, সহকারি কমিশনার (ভূমি) রঞ্জন চন্দ্র দে, থানার ওসি কেএম আজিজুল ইসলাম এসময় উপস্থিত ছিলেন।
এছাড়াও কলেজ অধ্যক্ষ নির্মল কান্তি বিশ্বাস, উপাধ্যক্ষ মাহফুজুর রহমান, জেলা পরিষদ সদস্য শাহাবুদ্দিন তালুকদার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নাসির উদ্দিনসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের অধীনে ২ কোটি ১০ লাখ টাকা ব্যয়ে এই আশ্রয় কেন্দ্রটি নির্মাণ করা হয়েছে। ভবনটিতে এক সাথে কমপক্ষে ৩ হাজার লোক আশ্রয় নিতে পারবে।
শরণখোলা প্রতিনিধি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাগেরহাটের শরণখোলার তিনটিসহ উপকুলীয় ১৭টি উপজেলার মোট ১০০টি বহুমূখী ঘুর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন করেছেন। রবিবার সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাধ্যমে আশ্রয় কেন্দ্রগুলো উপকুলবাসীকে উপহার দেন প্রধানমন্ত্রী।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তাবায়ন অফিস সূত্রে জানা গেছে, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নে একেকটি আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণে দুই কোটি আট লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। বহুমুখী এই আশ্রয় কেন্দ্রগুলো প্রতিবন্ধীবান্ধব। এছাড়াও উন্নত স্যানিটেশন, বৃষ্টির পানি সংরক্ষণসহ সোলার ও বিদ্যুৎ সুবিধা রয়েছে এতে। শরণখোলায় নির্মিত আশ্রয়কেন্দ্র তিনটি হচ্ছে, উপজেলা সদরের শরণখোলা মহিলা দাখিল মাদরাসা বহুমুখী আশ্রয়কেন্দ্র, জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয় বহুমুখী আশ্রয়কেন্দ্র ও রাজাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় বহুমুখী আশ্রয়কেন্দ্র।
এরমধ্যে উপজেলা সদরের মহিলা দাখিল মাদরাসায় নির্মিত আশ্রকেন্দ্রে উদ্বোধন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা শেষে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন আকন ফিতা কেটে আশ্রয়কেন্দ্রের নামফলক উন্মোচন করেন।
পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সরদার মোস্তফা শাহিনের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা এস কে আব্দুল্লাহ আল সাইদ, কৃষি কর্মকর্তা সৌমিত্র সরকার, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নূরুজ্জামান খান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রনজিৎ সরকার, ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলন, রায়েন্দা-রাজৈর ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ আ. জলিল আনোয়ারী, আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণের ঠিকাদার গোলাম মোস্তফা মধু।
এছাড়া অনুষ্ঠানে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক-ছাত্রছাত্রী, সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, সিপিপি, রেডক্রিসেন্টসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
এরআগে সকাল ৯টায় আন্তর্জাকি দুর্যোগ প্রসমন বিদসের এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালিটি উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে শুরু বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে ‘নিয়ম মেনে অবকাঠামো গড়ি, জীবন ও সম্পদের ঝুঁকি হ্রাস করি’ প্রতিপাদ্যের আলোকে পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

শেয়ার