ফাহাদ হত্যার আরেক আসামি সাতক্ষীরা সীমান্তে গ্রেপ্তার

সমাজের কথা ডেস্ক॥ সীমানা পেরিয়ে ভারতে পালানোর আগে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি শামীম বিল্লাহকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
শুক্রবার বিকালে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) উপ-কমিশনার মো. মাসুদুর রহমান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল শামীমকে গ্রেপ্তার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাতক্ষীরা হয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছিল বলে সে জানায়।
শামীম বুয়েটের ন্যাভাল আর্কিটেকচার অ্যান্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ১৭তম ব্যাচের ছাত্র। আবরারের বাবার করা হত্যা মামলায় ১৪ নম্বর আসামি সে। এনিয়ে এই হত্যার ঘটনায় এজাহারভুক্ত ১৪ জনসহ ১৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হলো বলে মাসুদ জানান।
চারজনের নাম মামলার এজাহারে না থাকলেও হত্যাকা-ে সংশ্লিষ্টতার প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়ায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
বুয়েটের শেরে বাংলা হলের আবাসিক ছাত্র ও তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরারকে গত রোববার রাতে ছাত্রলীগের এক নেতার কক্ষে নিয়ে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়।
গ্রেপ্তারদের মধ্যে বুয়েট শিক্ষার্থীদের মধ্যে বুয়েট ছাত্রলীগের উপ-সমাজসেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল বৃহস্পতিবার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তিনি বুয়েটের বায়ো মেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র।
আবরারকে কীভাবে ক্রিকেট স্টাম্প আর স্কিপিং রোপ দিয়ে কয়েক ঘণ্টা ধরে বেধড়ক পেটানো হয়েছিল, সেই ভয়ঙ্কর বিবরণ তিনি জবানবন্দিতে দিয়েছেন বলে সংবাদমাধ্যমের খবরে উঠে এসেছে।
আবরার হত্যা মামলায় যে ১৯ জনের নাম ছিল, তাদের মধ্যে পাঁচজন এখনও পলাতক রয়েছেন। তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

শেয়ার