যশোরে দুই মামলার দুই আসামির রিমান্ড মঞ্জুর

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে দুই মামলার দুই আসামিকে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। সোমবার পৃথক দুইটি আদালতে এ রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। এর মধ্যে কারখানা শ্রমিক সানি হত্যা মামলায় কবির হোসেন কুট্টিকে একদিনের রিমা- মঞ্জুর করেছেন আদালত। একই সাথে এ মামলার আরেক আসামি শোভনের রিমান্ড না মঞ্জুর করা হয়েছে। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গৌতম মল্লিক এ আদেশ দেন।
অপরদিকে, অভয়নগরের একটি মারামারি মামলায় এক আসামির রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে। সানি হত্যা মামলার আসামি কুট্টি শহরের শংকরপুর জমাদ্দারপাড়ার চান্দু পকেটমারের ছেলে এবং শোভন শংকরপুর ইসহক সড়কের দেলোয়ার হোসেন দুলালের ছেলে। অভয়নগরের মারামারি মামলার আসামি মিলন মল্লিক খুলনার আড়ংঘাটা থানার রংপুর গ্রামের অধীর মল্লিকের ছেলে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ১৮ জুন সন্ধ্যায় শংকরপুর কেন্দ্রীয় বাসটার্মিনাল এলাকায় সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও হাতুড়ি পেটা করে সানিকে খুন করে। এ ব্যাপারে নিহতের বোন সম্পা খাতুন বাদী হয়ে ৮জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। প্রথমে থানা এবং পরে মামলাটি সিআইডি পুলিশ তদন্তের দায়িত্ব পায়। আসামি শোভন ও কুট্টি পুলিশি গ্রেপ্তার এড়াতে কিছুদিন আগে আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি পুলিশের পরিদর্শক হারুন অর রশিদ তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন আদালতে। এদিন বিচারক তাদের মধ্যে কুট্টিকে একদিনের রিমান্ড ও অপর আসামি শোভনের রিমান্ড না মঞ্জুর করেন।
অপরদিকে, অভয়নগর উপজেলার ধোপাখোলা গ্রামের মৃত নজরুলের ছেলে আসাদুজ্জামান সাজকে মারপিটের মামলায় মিলন মল্লিক নামে এক আসামির দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক। আসামি মিলন মল্লিক খুলনার আড়ংঘাটা থানার রংপুর গ্রামের অধীর মল্লিকের ছেলে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ১১ জুন অভয়নগর উপজেলার ধোপাখোলা গ্রামের মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে আসাদুজ্জামান সাজকে সন্ত্রাসীরা মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে। এঘটনায় আহত সাজের চাচী শাহিদা বেগম বাদী হয়ে অভয়নগর থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা আসামি মিলনকে ৭দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন আদালতে। এদিন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মঞ্জুরুল ইসলাম আসামি মিলনকে দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

শেয়ার