যশোরে আবেদনের প্রায় ৪ বছর পর পাসপোর্ট হাতে পেল যুবক

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরের শফিকুল ইসলাম নামে এক তরুণ আবেদনের প্রায় চার বছর পর পাসপোর্ট হাতে পেয়েছেন বলে দাবি করা হচ্ছে। সাধারণত আবেদনের এক মাসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়ার কথা থাকলেও তার ক্ষেত্রে লেগেছে দীর্ঘ এ সময়। রোববার যশোর পাসপোর্ট অফিসের উপ-পরিচালক সালাহউদ্দিন তাকে এই পাসপোর্ট হস্তান্তর করেন।
শফিকুল ইসলাম জেলার শার্শা উপজেলার গোগা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে। তিনি ২০১৬ সালের ১৮ জানুয়ারি পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন।
শফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, আবেদনের এক মাসের মধ্যে অর্থাৎ ‘ওই বছর ১৪ ফেব্রুয়ারি তাকে পাসপোর্ট দেওয়া হয়। কিন্তু আবার তার কাছ থেকে তা ফিরিয়ে নেয়। কর্মকর্তা এর কোনো কারণ না জানিয়ে ২১ ফেব্রুয়ারি আবার তাকে অফিসে যেতে বলেছিলেন। এরপর থেকে ২০১৯ ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তাকে শুধু দিন দেওয়া হয়েছে। পাসপোর্ট দেওয়া হয়নি। তারা এর কোনো কারণও বলেনি।’
এ অবস্থায় তিনি গত মাসের ২৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় পাসপোর্ট অফিসে লিখিথ অভিযোগ করেন। অভিযোগের অনুলিপি পাঠিয়েছিলেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার, যশোরের জেলা প্রশাসক ও যশোর পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তার কাছে।
তিনি আরও জানান, এরপর যশোর পাসপোর্ট অফিস থেকে খবর দেওয়া হয় পাসপোর্ট নেওয়ার জন্য। প্রায় চার বছর পর রোববার তাকে পাসপোর্ট দেন যশোর পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক সালাহ উদ্দিন।
সালাহ উদ্দিন বলেন, তিনি মাস ছয়েক আগে যশোরে এসেছেন। বিষয়টি জেনে খোঁজ নিয়ে দেখি শফিকুলের পাসপোর্ট মিসিং হয়েছে। পরে আমি নিজে উদ্যোগী হয়ে সমস্যার সমাধান করি। আগের কর্মকর্তারা কেন এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেননি তা আমি জানি না।

শেয়ার