লোহাগড়ায় ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ঘর নির্মাণের অভিযোগে দুজন গ্রেফতার

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি॥ বিরোধপূর্ণ জমিতে আদালতের ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে নড়াইলের লোহাগড়ার কুন্দসী গ্রামে টিনেরঘর নির্মাণের অভিযোগে দুজন মিস্ত্রিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) বেলা ১২টার দিকে কুন্দসী গ্রামে কাজ করবার সময় পুলিশ ওই দুজনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নারানদিয়া গ্রামের অমূল্য বিশ^াসের ছেলে মাখম বিশ^াস (৫০) ও দিপক বিশ^াসের ছেলে দেব বিশ^াস(২৫)।
লোহাগড়া থানার এসআই সুধাংশু কুমার মিত্র জানান, বিরোধপূর্ণ জমিতে আদালত স্থিতিবস্থা বজায় রাখতে ১৪৪ ধারা জারি করেছে। অথচ আদালতের আদেশ অমান্য করে কুন্দসী গ্রামের মৃত জিতেন্দ্রনাথ সরকারের ছেলে উত্তম কুমার সরকার মিস্ত্রি দিয়ে ঘরের কাজ করছেন। গোপন খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে ওই দুজন মিস্ত্রিকে গ্রেফতার করেছি। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
শিক্ষক আনন্দ কুমার সরকার জানান, ৮৬নং কুন্দসী মৌজার ৩৮০নং দাগে ২০০৮ সাল থেকে ৪ শতকের উপর দোতলা পাঁকা বাড়ি নির্মাণ করে বাড়িসহ ৭ শতক জমিতে বসবাস করছি। গত ১৫ সেপ্টেম্বর নিজ দোতলা ভবনের উন্নয়ন কাজ করতে গেলে ভাই উত্তম কুমার সরকার বাধা প্রদান করে এবং ১৮ সেপ্টেম্বর নড়াইল অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৪৪ ধারা মামলা দায়ের করে। মামলায় প্রতিপক্ষ বা বিবাদী করা হয়েছে সরকারি চাকুরীজীবি স্ত্রীসহ আমাকে।
এদিকে, উত্তম কুমার সরকার ১৪৪ ধারা জারি মামলা করে বাড়ি ফিরেই আমার দখলে থাকা ২ শতক জমি দখল করে ইট, বালি, বাঁশ, কাঠ, টিন দিয়ে নিজেই নতুন ঘর নির্মাণের কাজ শুরু করে। আদালতকে সম্মান দেখিয়ে আমি কাজ বন্ধ রাখলেও উত্তম কুমার সরকার নির্মাণ কাজ করেই চলছিলেন। নিরূপায় হয়ে আমিও গত ৩০ সেপ্টেম্বর আদালতে গিয়ে উত্তম কুমার সরকারকে প্রতিপক্ষ করে ১৪৪ ধারায় মামলা দায়ের করি। তারপরও আইন অমান্য করে উত্তম সরকার কাজ করায় পুলিশ দুজন মিস্ত্রিকে আটক করেছে। উত্তম কুমার সরকার ঘর নির্মাণের কথা স্বীকার করে বলেন, বোনদের জন্য ঘর নির্মাণ করছি।

শেয়ার