যশোরে হত্যা, পাচার ও চুরিসহ তিনটি মামলার চার আসামির রিমান্ড মঞ্জুর

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে হত্যা, মানব পাচার ও চুরিসহ পৃথক তিনটি মামলার চার আসামিকে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আসামিরা হলো, চাপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জের নাজমুল ইসলাম, কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার কচুপাড়া গ্রামের শুকুর আলীর ছেলে আব্দুর রহমান ও যশোর সদর উপজেলার আবাদ কচুয়া গ্রামের মকবুল সিকদারের ছেলে জাকির হোসেন এবং শার্শা উপজেলার বলফিল্ড এলাকার মৃত নুর ইসলামের ছেলে রিপন।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১৪ ডিসেম্বর মাসে ব্যবসায়িক দ্বন্দে¦র জেরে অভয়নগরে খুন হন তন্ময় কুমার নন্দী। তন্ময়ের পিতা যশোর শহরের বেজপাড়া এলাকার বাসিন্দা বাবলু কুমার নন্দী বাদী হয়ে যশোর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেন। পরে আদালতের আদেশে অভয়নগর থানায় নিয়মিত মামলা হিসেবে রেকর্ড হয়। এ মামলায় পুলিশ নাজমুলকে গ্রেপ্তারের পর ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করে। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মঞ্জুরুল ইসলাম মঙ্গলবার নাজমুলকে একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
অপরদিকে, মানব পাচার মামলার দুই আসামিকে দুইদিন করে রিমা- মঞ্জুর করেছেন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গৌতম মল্লিক। আসামিরা হলো কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার কচুপাড়া গ্রামের আব্দুস শুকুরের ছেলে আব্দুর রহমান ও যশোর সদর উপজেলার আবাদ কচুয়া গ্রামের মকবুল সিকদারের ছেলে জাকির হোসেন। কোতোয়ালি মডেল থানার এস আই শরিফুল ইসলামের চাওয়া সাতদিনের রিমান্ড আবেদনের বিপরীতে তাদের দুইদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক।
গত ২৪ সেপ্টেম্বর রাত ১ টায় রোহিঙ্গা পাচারের অভিযোগে ওই দুই আসামিকে আটক করা হয়। একই সাথে দুইজন রোহিঙ্গা নারীকে উদ্ধার করা হয়।
এছাড়া একটি চুরি মামলায় রিপন হোসেন নামে এক আসামির একদিনের রিমা- মঞ্জুর করেছেন আদালত। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুদ্দীন হোসাইন মঙ্গলবার এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
এদিকে, গত ৩ আগস্ট রাতে শার্শা উপজেলার মেঠোপাড়া এলাকার একটি বাড়ি থেকে ১৮ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ একলাখ ৩০ হাজার টাকা চুরি হয়। এ ঘটনায় বাড়ি মালিক শামীমুর রহমান বাদী শার্শা থানায় অজ্ঞাতনামা আসামি দিয়ে মামলা করেন। ওই মামলায় রিমান্ড শুনানি শেষে তাকে রিপনকে একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক।

শেয়ার