যশোরে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে শিমলা বেগম (২১) নামে এক গৃহবধূকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার বিকালে সদর উপজেলার মাহিদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের সুমন মোল্ল্যার স্ত্রী ও একই উপজেলার হাশিমপুর গ্রামের আহম্মদ আলীর মেয়ে।
মৃতের মা তারা বেগম জানান, ১৯ মাস আগে শিমলাকে সুমনের সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর নগদ দু’লাখ টাকা এবং ঘর সাজানোর জন্য টাকা দাবি করে। যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় প্রায়ই শিমলাকে মারপিট করা হতো। এই যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় সুমনের মারপিটের কারণে প্রথম স্ত্রী চলে যায়। বিষয়টি গোপন রেখে শিমলাকে বিয়ে করে সুমন।
যৌতুকের অংশ হিসেবে গত রোববার একটি বাক্স পাঠালে সুমন ক্ষিপ্ত হয়ে সোমবার সকালে শিমলাকে বেধড়ক মারপিট করে। এসময় সিমলা পিতার বাড়িতে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। কিছুদূর আসার পর সুমন তাকে ধরে নিয়ে যায়। এরপর বাড়িতে নিয়ে মারপিট করে। এ পর্যায়ে শিমলা জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। এ অবস্থায় সুমন তাকে গলায় ওড়না পেচিয়ে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে দেয়। তার মৃত্যু হওয়ার পর সুমন আত্মহত্যা বলে গ্রামে প্রচার করে। স্থানীয়রা এগিয়ে এসে ওড়না কেটে সিমলাকে উদ্ধার করে। সকাল থেকে তার বাড়িতে লাশ পড়ে থাকলে চাঁচড়া ফাঁড়ির এসআই মফিজুর রহমান রাত ১০টার দিকে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্ররণ করেন।
এসআই মফিজুর রহমান জানান, সিমলা বেগমের লাশ উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। কি কারণে মৃত্যু হয়েছে সে ব্যাপারে স্পষ্টতা কিছ্ ুজানা যায়নি। হত্যা না আত্মহত্যা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে জানা যাবে।

শেয়ার