সরকারের উন্নয়নের চিত্র মানুষের মাঝে পৌছে দিতে যুবসমাজকে ভূমিকা রাখতে হবে : স্বপন ভট্টাচার্য্য

নিজস্ব প্রতিবেদক, মণিরামপুর॥ এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের চিত্র সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে যুবসমাজকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। কোন ষড়যন্ত্রকারি গোষ্ঠীর উস্কানিতে পা না দিয়ে শান্তি-শৃংখলা বজায় রাখতে কাজ করতে হবে। একটি কু-চক্রীগোষ্ঠী নানা অপকর্ম করে উন্নয়নকে বাঁধাগ্রস্ত করতে চায়। সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, মাদকসহ সকল অনৈতিক কর্মকান্ডে যারাই জড়িত থাকবে, তারা যতই শক্তিশালী হোক না কেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।
শনিবার বিকেলে মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য সম্প্রতি বিদেশ সফর শেষে মণিরামপুরে আসলে যুবলীগের উদ্যোগে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আয়োজন করা হয়।
উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান উত্তম চক্রবর্তী বাচ্চুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি আরো বলেন, ‘গ্রাম হবে শহর’ এ জনবান্ধব প্রকল্প সফল বাস্তবায়নে জননেত্রী শেখ হাসিনা তার উপর যে আস্থা রেখেছেন তা পালন করতে নিজের শেষ রক্ত বিন্দু দিয়ে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।
এরই ধারাবাহিকতায় গ্রামীণ অবকাঠামোর মডেলের সফল চিত্র প্রত্যক্ষ করতেই তাকে বিশ্বের কয়েকটি উন্নত দেশে পাঠিয়েছিলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। এসব অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার এ প্রকল্প আরো বেগবান হবে বলে তিনি বিশ্বাস করেন। দেশকে এগিয়ে নিতে জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। ইতোমধ্যে দেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। আজ বিশ্বের অনেক দেশ জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের রোল মডেল অনুসরন করছে। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে এদেশ উন্নত বিশ্বের কাতারে সামিল হবে।
যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শরিফুল ইসলামের পরিচালনায় প্রধান অতিথি উপজেলার উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, তিনি দায়িত্ব পাওয়ার ৮ মাসের মধ্যে প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে বাইপাস সড়ক, ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে পৌরসভার উন্নয়ন প্রকল্প, ৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে বাকড়া-মুক্তারপুর, রাজগঞ্জ-মণিরামপুর-নেহালপুর-কপালিয়া সড়ক, ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে মশিয়াহাটিতে ৫শ’ আসন বিশিষ্ঠ অত্যাধুনিক অডিটোরিয়াম, ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে মসজিদ কমপ্লেক্স, মন্দির, ভাসমান সেতুকে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তুলতে কোটি টাকা বরাদ্দ, প্রায় তিন কোটি টাকা ব্যয়ে পৌরসভায় আধুনিক মাছের চান্দি, শিশু পার্ক, রাজগঞ্জ-মণিরামপুর সড়কের সেতু নির্মাণ, প্রায় ৩১ কোটি টাকা ব্যয়ে নেহালপুর-কারিবাড়ি সড়ক সংস্কার, ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নেহালপুর বাজারের সেতু নির্মানসহ প্রায় ২শ’ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহন করা হয়েছে। যার মধ্যে অনেক প্রকল্প বাস্তবায়ন হতে চলেছে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র কাজী মাহমুদুল হাসান, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমা খানম। সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এম নজরুল ইসলাম, জিএম মজিদ, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আমজাদ হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. বশির আহমেদ খান, জেলা পরিষদের সদস্য গৌতম চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক প্যানেল মেয়র-১ কামরুজ্জামান কামরুল, ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল রাজ্জাক, গাজী মোহাম্মাদ আলী, সামসুল হক মন্টু, আব্দুল হক, মশিয়ূর রহমান, মনিরুজ্জামান মনি, আব্দুল হামিদ, শেখর চন্দ্র রায়, আবুল হোসেন, গাজী মাযাহারুল আনোয়ার, উপজেলা যুবলীগ নেতা দেবাশীষ বাবু, স ম আলাউদ্দিন, আব্দুল কুদ্দুস, পৌর যুবলীগের সভাপতি এস এম লুৎফর রহমান, সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম রবি, হাবিবুর রহমান রনি, ছাত্রলীগ নেতা ফজলুর রহমান, হাদিউজ্জামান ফয়সাল, সাইদুর রহমান জনি প্রমুখ।

শেয়ার