প্রতিবন্ধী স্ত্রীর জমি-বাড়ি বিক্রি করে দিলেন প্রতারক স্বামী

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরের বাঘারপাড়ায় প্রতিবন্ধী স্ত্রীর ভাতার কার্ড নিয়ে টাকা উত্তোলনের নামে ফাঁকি দিয়ে জমি লিখে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় প্রতিবন্ধীর স্বামীসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। সোমবার প্রেসক্লাব যশোরে বাঘারপাড়া উপজেলার পুকুরিয়া গ্রামের আব্দুস সামাদ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রতিবন্ধী কল্যাণ সোসাইটির নির্বাহী সদস্য ইদ্রিস আলী, প্রতিবন্ধী মাহফুজা খাতুন, সোনিয়া খাতুন, ইউসুফ আলী, আলী আকবর প্রমুখ।
লিখিত বক্তব্যে আব্দুস সামাদ বলেন, বাঘারপাড়ার আবুল হোসেনের সাথে আব্দুস সামাদের বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী মেয়ে মাহফুজা খাতুনকে বিয়ে দেয়া হয়। মেয়েটি প্রতিবন্ধী থাকার কারণে তার সুখের কথা ভেবে মাহফুজার পিতা ৪ শতক জমি লিখে দেন এবং ৪ কক্ষ বিশিষ্ট একটি ঘর নির্মাণ করে দেন। এরপর তাদের দাম্পত্য জীবনে দুইটি সন্তানের জনক-জননী। মাহফুজা প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা পান। এরই মধ্যে তার স্বামী আবুল হোসেন বাঘারপাড়া বাজারের হোটেল ব্যবসায়ী লাবলু হোসেনের কাছে বাড়িসহ জমিটি বিক্রি করে দেন। আর ওই জমিটি দলিল করে দেয়ার জন্য আবুল হোসেন স্ত্রীকে ভাতার টাকা তোলার কথা বলে সাথে নিয়ে বাঘারপাড়া রেজিস্ট্রি অফিসে যান। সেখানে বাড়িসহ ৪ শতক জমি লাবলু হোসেনকে দলিল করে দেন। কিছুদিন পরে লাবলু হোসেন জমিসহ বাড়ি দখলের জন্য সেখানে এসে তাদের নেমে যেতে বলেন। এরই মধ্যে মাহফুজা ও তার পিতার বাড়ির লোকেরা জানতে পেরেছেন যে জমিসহ বাড়িটি বিক্রি করে দেয়া হয়েছে। বর্তমানে মাহফুজার স্বামী আবুল হোসেন বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে চলে গেছেন। এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী মাহফুজাকে তার জমিসহ বাড়িটি ফেরৎ পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার