যশোরে নাশকতার পরিকল্পনা ও বিস্ফোরক মামলা
সাবু, মারুফসহ বিএনপির ৫৩ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে নাশকতার পরিকল্পনা ও বিস্ফোরক মামলায় জেলা বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবুসহ ৫৩ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ। এ চার্জশিটে আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু মোর্তজা ছোট, সাবেক পৌর মেয়র মারুফুল ইসলাম মারুফকেও অভিযুক্ত করা হয়েছে।
অভিযুক্ত অন্যরা হলেন, যুগ্ম আহবায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন, সদস্য গোলাম রেজা দুলু, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খান, নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুনির আহম্মেদ সিদ্দিকী বাচ্চু, পৌর ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাশেদ আব্বাস রাজ, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আজম, যুবদল নেতা রকিবুল ইসলাম চৌধুরী সঞ্জয়, রাজিবুল ইসলাম রিপন চৌধুরী, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি এহসানুল হক মুন্না, ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সুমন ওরফে প্রেসিডেন্ট সুমন, পৌর ৩ নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মারুফ হোসেন ওরফে বেড়ে মারুফ, জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক নাজমুল হোসেন বাবুল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি রবিউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা আমির ফয়সাল, সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হায়দার রানা, সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্মল কুমার বিট, ঘোপ জেলরোড এলাকার মোকছেদ আলী, যশোর সদর উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামের সিরাজুল ইসলাম, নতুন উপশহর এলাকার বিল্লাল হোসেন রুবেল, জাহিদ হোসেন, যুবদল নেতা বদিউজ্জামান ধনি, এইচ এম এম রোডের আলমগীর হোসেন বাবু, এইচ এম এম রোডের মোহাম্মদ সেতু, খালধার রোড এলাকার আশরাফ আলী বদর, আজগর হোসেন, পূর্ববারান্দীপাড়া এলাকার শহিদুল ইসলাম টগর, ফারুক হোসেন, সোহানুর রহমান জাহিদ, লোন অফিস পাড়ার দেবাশিষ দাশ, ষষ্ঠীতলা রেল কোয়ার্টার এলাকার রবিউল ইসলাম রবি, চাঁচড়া রায়পাড়া এলাকার সুমন চৌধুরী, মোস্তফা কামাল শিপা, শংকরপুর এলাকার জাকির হোসেন, ঘোপ জেলরোডের ইঞ্জিনিয়ার কামাল হোসেন, কাজল, বাবু, সানিয়াত আরিফ নয়ন, মাছবাজার এলাকার রকিব উদ-দৌলা, উপশহরের জামিন হোসেন রনি, রেলগেটের খাইরুল বাশার শাহীন, আরএন রোড এলাকার মাসুদুর রহমান সোহাগ, নলডাঙ্গা রোডের রিয়াজ খান মিন্টু, স্টেডিয়ামপাড়ার মোস্তফা ও বালিয়াডাঙ্গার কামাল হোসেন বাবু। একই সাথে এ মামলা থেকে সিটি কলেজপাড়ার শহিদুল ইসলাম বাবু ওরফে পার্টস বাবুকে অব্যাহতির আবেদন করা হয়েছে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, সদর উপজেলার সিতারামপুর গ্রামের খলিলুর রহমান, ঝুমঝুমপুর এলাকার জাহাঙ্গীর হোসেন, হাশিমপুর গ্রামের আলতাফ হোসেন বাদল, লেবুতলা গ্রামের মহব্বত আলী মন্টুসহ সকল আসামি সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বাধাগ্রস্ত করতে হরতাল ধর্মঘট পালনের নামে দীর্ঘদিন ধরে গাড়ি, বাড়ি, অফিস, আদালত, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ, আইন শৃংখলা বাহিনীর উপর হামলা, বোমা বিস্ফোরণসহ নানা অপকর্ম চালিয়ে আসছে। এরই অংশ হিসেবে গত বছরের ১০ সেপ্টেম্বর বিকেলে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নাশকতা কর্মকান্ডের সময় পুলিশ তাদের ধাওয়া করে। মনিহার এলাকায় এসে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে দু’টি বোমা নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৫টি হাতবোমাসহ বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করে। এ ঘটনায় কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই এইচএম মাহমুদ বাদী হয়ে মামলা করেন। তদন্ত শেষে এসআই মাহবুব আলম আদালতে এ চার্চশিট দাখিল করেন।

শেয়ার