চেয়ারম্যানের গৃহকর্মীর ঝুলন্ত লাশ, হত্যার অভিযোগ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ মাগুরায় এক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের গৃহকর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার শালিখা উপজেলা সদরের আড়পাড়ায় মঘি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাসনা হেনার বাড়ি থেকে ১৫ বছর বয়সী এই মেয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়।
মেয়েটির স্বজনদের অভিযোগ, তাকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার করা হয়েছে।
তবে পুলিশ বলছে, এটি হত্যা না আত্মহত্যা তা ময়নাতদন্তের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে।
মেয়েটির মামা সাংবাদিকদের বলেন, মাগুরা সদর উপজেলার বাসুদেবপুর গ্রামের এই মেয়েটি ৬-৭ বছর ধরে চেয়ারম্যান হাসনা হেনার বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করছিলেন।
শুক্রবার রাতে মেয়েটির বড় বোন চেয়াম্যানের বাড়ি যান ছোট বোনকে দেখতে; কিন্তু তাকে বাসায় ঢুকতে দেওয়া হয়নি। তাই বড় বোন কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি ফিরে আসেন বলে মামার অভিযোগ।
“শনিবার সকালে চেয়ারম্যান ফোন দিয়ে তার বাবাকে জানান যে তার মেয়ে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে।”
মেয়েটির বাবার অভিযোগ, তারা খবর পেয়ে পুলিশের সঙ্গে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধারে যান। সেখানে দেখেন তার মেয়ের বাম পা খাটের উপর হাটু গাড়া দেওয়া এবং ডান পা খাটের নিচে ঝুলন্ত অবস্থায়। তারও অভিযোগ, মেয়েকে হত্যা করে এভাবে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।
মঘি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোছা. হাসনা হেনা বলেন, “মেয়েটি প্রায় সাত বছর আমার বাসায় কাজ করছে। কিন্তু কী কারণে সে গলায় ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে তা বলতে পারছি না।”
শালিখা থানার ওসি মো. তরীকুল ইসলাম বলেন, মেয়েটি খাটের মশারির স্ট্যান্ডের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

শেয়ার