যশোর ব্যাটারির দোকানে অভিনব কায়দায় ৭ লাখ টাকার পণ্য চুরি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর শহরের সিটি কলেজ মার্কেটের ব্যাটারিপট্টিতে মেসার্স ট্রাক্টর অ্যান্ড স্যালোর দোকানে অভিনব কায়দায় চুরি হয়েছে। অজ্ঞাতনামা চোরেরা পিকআপ নিয়ে দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে মালামাল কেনাবেচার নাটক সাজিয়ে সার্টারের তালা ও হ্যান্ডবোল্ট কেটে বিভিন্ন প্রকারের ৭ লাখ টাকা মূল্যের ব্যাটারি চুরি করে নিয়ে গেছে।
মেসার্স ট্রাক্টর অ্যান্ড স্যালো দোকানের মালিক মোহাম্মদ গুলশান জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে দোকান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যান। শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে ওই বাজারের নৈশ প্রহরী আব্দুর রাজ্জাক দোকানে চুরির ঘটনা মোবাইল ফোনে গুলশানকে জানান। তিনি সাথে সাথে দোকানের গিয়ে দেখেন দোকানের সামনের একটি বাল্ব ভাঙ্গা। ক্লবসিবল গেটে লাগানো ৪টি তালা কাটা। অন্য একটি তালা কাটতে না পেরে গেটের হ্যাজবোল্ট কাটা হয়েছে। দোকানের মধ্যে রাখা অটোরিকসার জন্য ৪শ’ ব্যাটারি নেই। এছাড়া ট্রাক, পিকআপ, ইজিবাইকসহ বিভিন্ন যানবাহনের ব্যবহৃত ব্যাটারি নেই। সব মিলিয়ে ৭ লাখ টাকার ব্যাটারি চুরি হয়েছে। দোকানের অদূরে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে দেখতে পান, রাত ৩টার দিকে একটি পিকআপ দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে ছিল। দোকানের সামনে ব্যাটারির প্যাকেটগুলো সাজানো রয়েছে। একদল লোক মালামাল গাড়িতে উঠাচ্ছে। দেখে মনে হচ্ছে মালামাল কেনাবেচা হচ্ছে। যাতে কেউ সন্দেহ করতে না পারে সে জন্য তারা কাগজপত্র দেখছে। পরে সাড়ে ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে মালামালগুলো পিকআপে করে নিয়ে চলে যায়।
তিনি আরো জানিয়েছেন, শুক্রবার যশোর টায়ার ব্যবসায়ী মালিক সামিতির নির্বাচন। বৃহস্পতিবার অনেক রাত পর্যন্ত দোকানের সামনে লোকজন ছিল। তাদের অনেকে পিকআপ দেখেছেন। তারাও মনে করেছেন, মালামাল লোড আনলোড করা হচ্ছে। কিন্তু দোকান ভেঙ্গে চুরি হচ্ছে তা কেউ বুঝতে পারেনি।
কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই এসএম শামীম আক্তার সকালে ঘটনাস্থলে যান এবং দোকান পরিদর্শন করেন। তিনি নৈশ প্রহরী আব্দুর রাজ্জাকের সাথে কথা বলেছেন। এ বিষয়ে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে বলে এসআই শামীম আক্তার জানিয়েছেন।
প্রসঙ্গত, গত ২৮ আগস্ট নীলগঞ্জ সুপারি বাগান এলাকার একটি ব্যাটারির দোকানের তালা ভেঙ্গে ব্যাটারি চুরি হয়। মাস তিনেক আগে বকচর এলাকায় ইস্টার্ণ মটরর্সের গোডাউন থেকে ৪০টি ব্রিস্টন টায়ার চুরি হয়। ওই টায়ার গুলো একটি ট্রাকে করে নিয়ে যায় চোরচক্র।

শেয়ার