মিনি সচিবালয় হাওয়া ভবনে বসে গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনা করেছিল তারেক : শাহীন চাকলাদার

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে সচিবালয় নয়, সরকার পরিচালিত হতো ‘হাওয়া ভবন’ থেকে। ওই হাওয়া ভবন থেকে দুর্নীতি-সন্ত্রাসের যুবরাজ তারেক রহমান সাবেক বিরোধীদলীয় নেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ২১ আগস্ট সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে গ্রেনেড হামলা করা হয়। তারেকের এ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে তৎকালীন পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার শীর্ষ কর্মকর্তারা জড়িত ছিলেন। তাদেরও আইনের আওতায় আনতে হবে।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মাসব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক যুবলীগ নেতা শাহজাহান কবীর শিপলুর আয়োজনে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাহীন চাকলাদার এসব কথা বলেন। শহরের গাড়িখানা এলাকায় এই অনুষ্ঠান থেকে পরে মানবভোজ বিতরণ করা হয়।
এর আগে শাহীন চাকলাদার প্রধান অতিথি হিসেবে শহরের দড়াটানায় জেলা রিক্সা ভ্যান শ্রমিকলীগ, ওজোপাডিকো অফিসে বিদ্যুৎ শ্রমিক- কর্মচারী লীগ ও সাদেক দারোগার মোড়, নাজির শংকরপুর জিরোপয়েন্ট মোড়, চাতালের মোড়, মুড়লী, বকচর, নীলগঞ্জে দলীয় নেতাকর্মীদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল শেষে মানবভোজ বিতরণ করেন।
এসব অনুষ্ঠানে শাহীন চাকলাদার বলেন, যারা জাতির পিতাকে হত্যা করতে পারে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ২৩বার হত্যাচেষ্টা চালিয়েছে, তারা দেশপ্রেমিক হতে পারে না। তাই এই জামায়াত-বিএনপি পরিবারের কাউকে আওয়ামী লীগের সদস্য করা হবে না। যারা সদস্য হতে আগ্রহী তাদের বাবা-দাদাদের পরিচয় জানা হবে। বাবা-দাদা বিএনপি-জামায়াত বা মুসলিমলীগ আর ছেলে করবে ছাত্রলীগ, যশোরে তা হবে না।
এসব কর্মসূচিতে শাহীন চাকলাদারের সাথে ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা একেএম খয়রাত হোসেন, সাংগঠনকি সম্পাদক মীর জহুরুল ইসলাম, সাবেক তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ, দপ্তর সম্পাদক এসএম মাহমুদ হাসান বিপু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রেজাউল ইসলাম, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া পারভীন ডলি, উপপ্রচার সম্পাদক জিয়াউল হাসান হ্যাপী, সদস্য মশিয়ার রহমান সাগর, কবিরুল আলম, জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি আজিজুর রহমান, যশোর পৌরসভার কাউন্সিলর মোস্তাফিজুর রহমান মুস্তা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজেরা পারভীন, যশোর শহর আওয়ামী লীগ নেতা কাজী শহিদুল হক শাহিন, আজিজুল হক, অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান বাবুল, ইউসুফ শাহিদ, সুলতান মাহমুদ পরান, ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুল আলম মিন্টু, জাকির হোসেন রাজীব, জেলা যুবলীগের প্রচার সম্পাদক জাহিদ হোসেন মিলন, যুব মহিলালীগের সহসভাপতি নাসিমা আক্তার জলি, সদর উপজেলা যুব মহিলালীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক শেখ সাদিয়া মৌরিন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জুয়েল, সাবেক সহসভাপতি নিয়ামত উল্যাহ প্রমুখ।

SHARE