যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা বিগত কমিটির বিরুদ্ধে অনিয়ম তদন্ত করল এনএসসি

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থার বিগত কমিটির বিরুদ্ধে গঠনতন্ত্র লংঘন করে ১৬টি ক্লাবকে এফিলেশন দেওয়ার অভিযোগের তদন্ত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে যশোর সার্কিট হাউজে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে যুগ্ম সম্পাদক ও তদন্ত কর্মকর্তা এবিএম নাসিরুল আলম দুই পক্ষকে নিয়ে তদন্ত করেন। এসময় তদন্ত কর্মকর্তার সাথে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল হাসান ও সদর উপজেলা সহকারী ভূমি কর্মকর্তা সৈয়দ জাকির হোসেন।
জানা গেছে, আবাহনী ক্রীড়া চক্রের যশোরে সভাপতি আসাদুজ্জামান মিঠু ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ পরিষদের সাবেক সদস্য আব্দুল মান্নান এনএসসিতে বিগত কমিটির বিরুদ্ধে গঠনতন্ত্র লংঘন করে বিভিন্ন নামে ১৬টি ক্লাবকে অবৈধভাবে এফিলেশন দেওয়ার অভিযোগ করেন। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে এই তদন্ত হয়েছে গতকাল। বিগত কমিটি ও অভিযোগকারীদের উভয়ে পৃথকভাবে বক্তব্য ও তথ্য দিয়েছেন। এর আগে আরো একবার জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের বরাবর বিগত কমিটির বিরুদ্ধে গঠনতন্ত্র লংঘন করে ২৪টি ক্লাব এফিলেশন দেওয়ার অভিযোগ করেন আসাদুজ্জামান মিঠু ও আব্দুল মান্নান। সেই ২৪ ক্লাবের তদন্ত শেষে আটটি ক্লাবের এফিলেশন বাতিল করা হয়েছিল।
এদিকে বাতিলকৃত লালদীঘি স্পোর্টিং ক্লাব সবুজ, আসাদ স্মৃতি সংঘ সাদা, বিপনন ক্লাব সবুজ, মুন্সি এরশাদ আলী স্মৃতি সংঘ হলুদ, বিপ্লব শহীদ স্মৃতি সংঘ লাল, আজাদ স্পোর্টিং ক্লাব লাল, প্রান্তিক ক্রীড়া চক্র লাল ও প্রান্তিক ক্রীড়া চক্র ব্লুসহ এই আট ক্লাব এনএসসি বরাবর আপিল করেছেন। তদন্ত শেষে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে যুগ্ম সম্পাদক ও তদন্ত কর্মকর্তা এবিএম নাসিরুল আলম সাংবাদিকদের বলেন, অভিযোগকারী ও বিগত কমিটির পক্ষে বিপক্ষে কথা শুনেছি। দুই পক্ষ অভিযোগের উপরে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ক্রীড়া পরিষদের পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তাদের কাগজপত্র পর্যলোচনা করে তদন্তের রিপোর্ট দেয়া হবে।
বিগত কমিটির যুগ্ম সম্পাদক এবিএম আখতারুজ্জামান বলেন, নির্বাচন হতে না দেওয়ার জন্য এক গ্রুপ ষড়যন্ত্র করছে। তার কারণ হিসিবেই এনএসসিতে বারবার অভিযোগ দিয়ে তদন্ত করানো হচ্ছে। তদন্ত কর্মকর্তার কাছে আটটি ক্লাবের জন্য আপিল করেছি ও ১৬টি ক্লাবের সঠিক কাগজপত্র দেওয়া হয়েছে।
আবাহনী ক্রীড়া চক্রের যশোরে সভাপতি আসাদুজ্জামান মিঠু বলেন, যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থার বিগত কার্যনির্বাহি কমিটি গঠনতন্ত লংঘন করে বিভিন্ন নামে অবৈধভাবে ক্লাবের এফিলেশন দিয়েছেন। আমরা সঠিক তদন্তের জন্য এনএসসির দারখাস্ত দিয়েছিলাম। যার তদন্ত হচ্ছে।

SHARE