পাইকগাছায় একটি অসহায় পরিবারের বাড়িঘরে হামলা ভাংচুর মারপিট

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি ॥ পাইকগাছায় অসহায় এক পরিবারের বসতবাড়িতে হামলা, মারপিট ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। অসহায় ওই পরিবারকে উচ্ছেদ করতে প্রতিপক্ষরা সোমবার দুপুরে এই হামলা করে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ একজনকে আটক করেছে।
থানা পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানাগেছে, পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের সরল গ্রামের অসহায় রাবেয়া বেগম বয়রা স্লুইচ গেট সংলগ্ন ওয়াপদার স্লোপে সরকারি জায়গার উপর বসতবাড়ি নির্মাণ করে দিনমজুর স্বামী ও সন্তান নিয়ে দীর্ঘদিন বসবাস করে আসছেন। ওই বসতবাড়ি থেকে রাবেয়া পরিবারকে উচ্ছেদ করতে প্রতিপক্ষ ঘোষাল গ্রামের শওকত গাজীর ছেলে মামুন গাজী গংরা বিভিন্ন ধরণের ষড়যন্ত্র ও পায়তারা করে আসছে। এরই জের ধরে সোমবার দুপুরে প্রতিপক্ষরা রাবেয়ার বসতবাড়িতে হামলা মারপিট ও ভাংচুর করে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করে। এ ঘটনায় রাবেয়া ও তার মেয়ে আসমা আক্তার ময়ূরী আহত হয়েছেন। স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। হামলার খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে প্রতিপক্ষ মামুন গাজীকে (৪০) আটক করে। এ ঘটনায় রাবেয়া বেগম বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ মামুন গাজী (৪০), আল আমিন গাজী (৩৫), মনজুয়ারা বেগম (৩৫), রোজিনা বেগম (৪০), সাবিনা বেগম (৩৫) ও লিপি বেগমকে (৩০) আসামি করে থানায় মামলা করে। যার নং-২৩, তাং ১৯/০৮/২০১৯ ইং। এ ব্যাপারে ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, রাবেয়ার পরিবার অত্যন্ত অসহায়। পরিবারটি পাউবো’র ওয়াপদার স্লোপে বসতবাড়ি নির্মাণ করে কোন রকমে বসবাস করে আসছেন। প্রতিপক্ষরা তাদের ওখান থেকে উচ্ছেদ করতে দীর্ঘদিন পায়তারা ও অসহায় পরিবারটিকে হয়রানী করে আসছে। সোমবার দুপুরে হামলার খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে প্রতিপক্ষদের কাছ থেকে অসহায় রাবেয়া পরিবারকে রক্ষা করে। একই সাথে ঘটনাস্থল থেকে মামুনকে আটক করা হয়। আটক মামুনকে মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হলে বিজ্ঞ আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন বলে রাবেয়া বেগম জানিয়েছেন।

শেয়ার