কাউকে দেখলেই আঁতকে উঠছে ৯ বছরের মেয়েটি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি॥ সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে মায়ের কোলে শুয়ে কান্নাকাটি করছে নয় বছরের মেয়েটি। কাউকে দেখলেই আঁতকে উঠছে। মুখ ঢেকে নিজেকে আড়াল করতে চাইছে নিজেকে। স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীটি ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। তবে এখনো মামলা হয়নি। মেয়েটির মা বলেন, শনিবার সকালে গৃহস্থালির কাজে ব্যস্ত ছিলেন তিনি। এই সুযোগে সকাল সাড়ে সাতটার দিকে এক স্বজন মেয়েকে খাবার দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে নিয়ে যায়। পরে তাঁর মেয়েকে ধর্ষণ করেন ওই স্বজন। মেয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়িতে এসে তাকে ঘটনা বলে। পরে মেয়েকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, ভর্তি থাকা শিশুটি ক্ষত স্থানের যন্ত্রণায় ছটফট করছে। জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সোমা রানী দাস বলেন, শিশুটির অভিভাবকেরা দুপুর ১২টার দিকে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক কানিজ ফাতেমা বলেন, তিনি প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন শিশুটিকে ধর্ষণ করা হয়েছে। তার গোপন অঙ্গে ক্ষত হয়েছে। অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে ক্ষত স্থানে সেলাই ও চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। শিশুটির বাবা কৃষিকাজ করেন। তিনি বলেন ওই স্বজনের ফাঁসি চান। যে স্বজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তাঁর বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। মা-বাবা ও পরিবারের অন্যরা গা ঢাকা দিয়েছেন বলে স্থানীয়রা জানান।
সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহা. মোস্তাফিজুর বলেন, মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। হাসপাতালে ভর্তি শিশুর অভিভাবকের সঙ্গে কথা বলেছেন। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। তবে শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ থানায় মামলা করেনি।

SHARE