প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে খুলে দেয়া হলো উপশহর মার্কাজ মাদ্রাসা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ তাবলীগ জামাতের দুই পক্ষের দ্বন্দে¦র জেরে এক মাসেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর যশোরের উপশহর মার্কাজ মাদ্রাসা খুলে দেওয়া হয়েছে। গতকাল শনিবার প্রশাসনের হস্তক্ষেপে মাদ্রাসাটি খুলে দেওয়া হয়। এদিন সকালে যশোর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ ইব্রাহিম ও কোতোয়ালি থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) সমীর কুমারের উপস্থিতিতে মাদ্রাসাটি খুলে দেওয়া হয়েছে। এরপর থেকে মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের পাঠদান আরম্ভ হয়েছে।
যশোর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মাদ ইব্রাহিম জানান, যশোরের মার্কাজ পরিচালনা নিয়ে এটির শূরা সদস্যদের দ্বন্দ্ব রয়েছে। এই দ্বন্দ¦ নিরসনে জেলা প্রশাসেনর সাথে দুই পক্ষের একটি বৈঠকও হয়েছে। ওই বৈঠকে দুই পক্ষের মধ্যে দ্বন্দে¦র বিষয়টি নিরসন না হওয়ায় মাদ্রাসা পরিচালনার জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়। শূরা সদস্যদের ভেতরকার বিরোধ নিষ্পতি না হওয়ায় সাময়িকভাবে মাদ্রাসা চালানোর জন্য ওই কমিটিতে দায়িত্ব দেওয়া হয়। একজন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সদরের নির্বাহী কর্মকর্তা ও একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে সদস্য করে কমিটি গঠন করা হয়। তিনি জানান, কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সাময়িকভাবে মাদ্রাসা খুলে দেওয়া হয়েছে।
দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকার পর এই প্রতিষ্ঠানটি খুলে দেওয়ায় সন্তোষ্টিটি প্রকাশ করেছেন যশোর মার্কাজ মসজিদের ইমাম ও মাদ্রাটির ওস্তাদ মুফতি মাজেদুল ইসলাম। তিনি জানান, গতকাল মাদ্রাসা খুলে দেওয়ার পর শিক্ষার্থীরা মাদ্রাসায় আসতে শুরু করেছে। গতকাল প্রায় ২৫ থেকে ৩০ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিল। দিনে ও রাতে তাদের মাদ্রাসার উস্তাদরা পাঠ দান করিয়েছেন।
জানা যায়, মার্কাজ মাদ্রাসা পরিচালনা নিয়ে তাবলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ¦ চলছে। এর জের ধরে গত প্রায় এক মাস সাত দিন ধরে মাদ্রাসাটি বন্ধ থাকে। মাদ্রসা পরিচালনা (শূরা সদস্য) কমিটি দুই অংশে বিভক্ত হয়ে রগছে। একাংশ তাবলীগ জামায়াতের মাওলানা জুবায়ের ও অপর অংশ মাওলানা ছাদপন্থী হিসাবে পরিচিত। দ্বন্দে¦র কারণে মার্কাস মসজিদ ও মাদ্রসার দুই পক্ষের মুসল্লিদের মধ্যে রেশারেশি চলছে। চলমান এই দ্বন্দ¦ নিরসনে গত সাত জুলাই যশোর সার্কিট হাউসে তাবলীগ জামাতের দুই পক্ষের সাথে বৈঠকে বসেন জেলা প্রশাসক। কিন্তু দীর্ঘ সময় বৈঠক থেকে কোন সুরাহা না হওয়ায় একজন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সদরের নির্বাহী কর্মকর্তা ও একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে সদস্য করে কমিটি গঠন করা হয়।

SHARE