রোগীদের সুবিধায় আরো দু’টি কাউন্টার একটি বরাদ্দ হবে সিনিয়র সিটিজেনদের

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর জেনারেল হাসপাতালের চলতি মাসের শেষে শুরু হতে যাচ্ছে প্রশাসনিক ভবনের উপরে ৪র্থ তলা নির্মাণ কাজ। কাজ শেষে এই সম্পূর্ণ ফ্লোরটি এসির আওতায় আনার জন্য সকল ব্যবস্থা নিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু।
হাসপাতালের সভাকক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে জেলা হাসপাতাল চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা কমিউনিটির সাপোর্ট কমিটি সভায় তিনি উপস্থিত সকলের সর্বসম্মতিক্রমে এই নির্দেশ দিয়েছেন। এ জন্য তিনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে লেখার জন্য বলেন। এসির অর্থের যোগানও জেলার এলিট ব্যক্তিরা দিবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি যশোরের পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু।
তিনি আরও বলেন, হাসপাতালের বহিঃবিভাগে আগত রোগীদের জন্য দু’টি সেন্ট্রাল ক্যাশ কাউন্টার চালু রয়েছে। কিন্তু দীর্ঘ লাইনের জন্য রোগীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। তাই রোগীদের সুবিধার জন্যে আরো নতুন দু’টি কাউন্টার স্থাপন করা হবে আগামী মিটিংয়ের আগে। এই চারটি কাউন্টারের মধ্যে একটি সিনিয়র সিটিজেন জন্যে বরাদ্ধ থাকবে। নতুন কাউন্টারের জন্যে দু’টি কম্পিউটার তিনি নিজ তহবিল থেকে দিবেন। হাসপাতাল পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে প্রতিদিন পৌর সভার পরিচ্ছন্ন কর্মীরা হাসপাতালের কর্মীদের সাথে মিলে দু’ঘণ্টা করে হাসপাতালে কাজ করবে। আর আগামীতে কোনো রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়ে যাতে ফ্লোরে থেকে সেবা নিতে না হয় সেজন্য এই কমিটি জেলার বিত্তশালীদের কাছ থেকে আর্থিক অনুদান নিয়ে হাসপাতালের অবকাঠামো উন্নয়ন করা হবে।
সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল কালাম আজাদ লিটু, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল আল নাসের, হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের বিশেষজ্ঞ ডা. আব্দুর রহিম মোড়ল, ভারপ্রাপ্ত আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা.ওহেদুজ্জামান ডিটু, পৌর সভার ইঞ্জিনিয়ার কামাল হোসেন, জেলা যুবলীগের যুগ্ম-সম্পাদক আজাহার হোসেন স্বপন প্রমুখ।

শেয়ার