ভারত-নিউজিল্যান্ড : ফাইনালের ফয়সালা আজ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে প্রথম সেমি ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে খেলতে নামে গতবারের রানার্সআপ নিউজিল্যান্ড। টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন কিউই দলপতি কেন উইলিয়ামসন। বৃষ্টির আগে ৪৬.১ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে কিউইরা তোলে ২১১ রান। ফিফটির দেখা পান দলপতি কেন উইলিয়ামসন, রস টেইলর।
মঙ্গলবার (৯ জুলাই) বাংলাদেশ সময় দুপুর সাড়ে তিনটায় ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে শুরু হয় ম্যাচটি। সেমি ফাইনালে রিজার্ভ ডে থাকায় ম্যাচের বাকি অংশ আজ বুধবার (১০ জুলাই) মাঠে গড়াবে। বুধবার দুপুর সাড়ে তিনটায় শুরু হবে ম্যাচের বাকি অংশ। নিউজিল্যান্ড আরও ২৩টি বল খেলার সুযোগ পাবে। যদি বুধবারও ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে শেষ না হয়, তাহলে গ্রুপপর্বে শীর্ষে থাকার সুবিধা নিয়ে ফাইনালে উঠবে ভারত।
১৯৮৩ বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এই ভেন্যুতেই রান চেজ করে জিতেছিল ভারত। ২০০৩ আর ২০১১ বিশ্বকাপের সেমিতে আগে ব্যাট করেছিল টিম ইন্ডিয়া আর ১৯৯৬ এবং ২০১৫ বিশ্বকাপে রান তাড়া করতে গিয়ে হেরেছিল ভারত। গ্রুপ পর্বের দু’দলের একমাত্র ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছিল। আর মূল মঞ্চে নামার আগে কিউইদের কাছে প্রস্তুতি ম্যাচে হেরেছিল কোহলি-ধোনিদের দলটি।
ব্যাটিংয়ে নেমে ১ রানে বিদায় নেন কিউই ওপেনার মার্টিন গাপটিল। আরেক ওপেনার হেনরি নিকোলস ৫১ বলে করেন ২৮ রান। তিন নম্বরে নামা দলপতি উইলিয়ামসন এবং রস টেইলর জুটি গড়েন। ৯৫ বলে ছয়টি বাউন্ডারিতে ৬৭ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন উইলিয়ামসন। জিমি নিশাম ১২, কলিন ডি গ্রান্ডহোম ১৬ রান করে বিদায় নেন। উইলিয়ামসন-নিকোলস জুটিতে আসে ৬৮ রান। আর উইলিয়ামসন-টেইলর জুটিতে আসে ৬৫ রান। টেইলর-নিশাম জুটিতে আসে ২৮ রান। টেইলর-গ্রান্ডহোম জুটিতে স্কোরবোর্ডে যোগ হয় ৩৮ রান।
রস টেইলর একপ্রান্ত ধরে রেখে দলকে টেনে নিতে থাকেন। ৪৬.১ ওভার পর বৃষ্টিতে ম্যাচটি বন্ধ হয়ে যায়। ৬৭ রান করে অপরাজিত আছেন টেইলর। ৩ রানে অপরাজিত আছেন টম ল্যাথাম।
ভারতের হার্দিক পান্ডিয়া ১০ ওভারে ৫৫ রান দিয়ে একটি, রবীন্দ্র জাদেজা ১০ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে একটি আর যুভেন্দ্র চাহাল ১০ ওভারে ৬৩ রান দিয়ে একটি উইকেট তুলে নেন। ভুবনেশ্বর কুমার ৮.১ ওভারে ৩০ রান দিয়ে একটি উইকেট পান। আর জাসপ্রিত বুমরাহ ৮ ওভারে ২৫ রান দিয়ে তুলে নেন একটি উইকেট।

শেয়ার