মাগুরায় প্রকাশ্যে কলেজছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

মাগুরা প্রতিনিধি॥ মাগুরা সদরে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাতে এক কলেজছাত্রকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক যুবকের বিরুদ্ধে। এ সময় ওই ছাত্রের এক বন্ধু আহত হয়েছেন। উপজেলার শিবরামপুর মডার্ন মোড়ে রোববার এ ঘটনা ঘটেছে।
নিহত লিসান আহম্মেদ (১৮) সদরের আঠারোখাদা মঠবাড়ি গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি মাগুরা সরকারি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র।
আহত দিপু মাগুরা আদর্শ কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র। তাকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এ হামলার অভিযোগে সোহেল নামে স্থানীয় এক যুবককে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। সোহেল শিবরামপুর গ্রামের টিপু মোল্লার ছেলে। সোহেল এলাকায় বখাটে হিসেবে পরিচিত।
হাসপাতালে ভর্তি দিপু বলেন, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে লিসান ও দিপু মোটরসাইকেলে শহরতলীর শিবরামপুর মডার্ন মোড় এলাকায় যান। পেছনে অন্য মোটরসাইকেলে তাদের আরও দুই বন্ধু ছিলেন।
“শিবরামপুর স্কুলের সামনে পৌঁছালে স্থানীয় বখাটে যুবক সোহেল এসে লিসানের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। এ সময় কিছু বুঝে ওঠার আগেই লিসানের পেটে ছুরি চালিয়ে দেয় সোহেল।”
পেছন থেকে লিসানকে বাচাঁতে গেলে তাকেও সোহেল ছুরিকাঘাত করে দৌড়ে পালিয়ে যায় বলেন দিপু। দিপু বলেন, স্থানীয়রা তাদের দুজনকে উদ্ধার করে মাগুরা সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসক লিসানকে মৃত ঘোষণা করেন।
মাগুরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসক শফিউর রহমান বলেন, ওটিতে নেওয়ার আগেই লিসানের মৃত্যু হয়েছে। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার পেট থেকে ভুঁড়ি বের হয়ে গিয়েছিল।

নাম প্রকাশে অনইচ্ছুক শিবরামপুর স্কুলের এক কর্মচারী বলেন, “সোহেল ক্লাস এইট পর্যন্ত লেখাপড়া করেছে। এলাকায় সে বখাটে হিসেবে পরিচিত।”

মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে তারা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন। তবে এর সঙ্গে মাদক বা নারী ঘটিত কোনো বিষয় জড়িত কিনা পুলিশ তা খতিয়ে দেখছে। একই সঙ্গে পুলিশ সোহেলকে গ্রেপ্তারে অভিযানও চালাচ্ছে।

SHARE